ওয়েস্ট ইন্ডিজের বিপক্ষে ৪৮ রানের দাপুটে জয়ে ওয়েস্ট ইন্ডিজের বিপক্ষে তিন ম্যাচের ওয়ানডে সিরিজ জিতে নিয়েছে মাশরাফি বিন মুর্তজার দল। প্রথম ম্যাচ শেষে বাংলাদেশ অধিনায়ক জানিয়েছিলেন, দলকে বলেছিলেন হৃদয় উজাড় করে দিয়ে খেলতে। মাশরাফির সেই মন্ত্র যে কাজে লেগেছে তার প্রমাণ, মাঠে সাকিব-তামিম-মুশফিক-মুস্তাফিজ-মিরাজদের শরীরী ভাষা।

দেখে বোঝাই যাচ্ছিল না, এই দলের অনেকেই টেস্টে নিজেদের ছন্দ খুঁজে বেড়িয়েছেন। অবশ্য দ্বিতীয় ম্যাচেই ঘটে ছন্দপতন। জয়ের একেবারে কাছাকাছি গিয়েও শেষ ওভারের রোমাঞ্চে ৩ রানে হারে সফরকারীরা। তবে সিরিজ নির্ধারণী তৃতীয় ওয়ানডেতে চেনা ছন্দেই দেখা গেল তামিম-রিয়াদ-রুবেলদের।

সেন্ট কিটসে ক্যারিবীয়দের বিপক্ষে ১৮ রানের জয় তুলে নিয়ে ৯ বছর পর বিদেশের মাটিতে সিরিজ জিতল বাংলাদেশ। এই জয়ে সতীর্থদের কৃতিত্ব দিতে ভোলেননি অধিনায়ক মাশরাফি। তবে শুধু কৃতিত্বই নয়, এই জয়ে নিজেদের পারফরম্যান্সকে ‘পেশাদার পারফরম্যান্স’ হিসেবেই স্বীকৃতি দিলেন বাংলাদেশের এই ওয়ানডে অধিনায়ক।

জয়ের পর পুরস্কার বিতরণী মঞ্চে অধিনায়ক মাশরাফি বলেন, ‘ক্রিকেট পুরোপুরি মেন্টাল গেম। আমরা দ্বিতীয় ওয়ানডে ম্যাচে হেরেছিলাম। যদিও সেদিন ৪৯ ওভার পর্যন্ত ম্যাচ আমাদের হাতেই ছিল। কিন্তু এই ম্যাচে, আমি বলব ছেলেরা পেশাদার পারফরম্যান্স দেখাতে পেরেছে। ছেলেরা দারুণ ছন্দে আছে।’

তামিম ইকবালের সেঞ্চুরি, মাহমুদউল্লাহ রিয়াদের অপরাজিত ৪৯ বলে ৬৭ রানের ওপর ভর করে ৩০১ রানের চ্যালেঞ্জিং স্কোর দাঁড় করায় বাংলাদেশ। জবাবে নির্ধারিত ৫০ ওভারে ছয় উইকেট হারিয়ে ক্যারিবীয়রা থামে ২৮৩ রানে। ফলাফল, উইন্ডিজকে ১৮ রানে হারিয়ে ২-১ ব্যবধানে ৯ বছর পর সিরিজ জিতে নেয় বাংলাদেশ।

**রাজনৈতিক, ধর্মবিদ্বেষী ও খারাপ কমেন্ট করা থেকে বিরত থাকুন।**

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here