রোববার বিমানবন্দর সড়কে বাসচাপায় দুই শিক্ষার্থী নিহত হওয়ার ঘটনায় নৌমন্ত্রী শাজাহান খানের পদত্যাগ ও ক্ষমা চাওয়ার দাবি তোলেন প্রতিবাদে মুখর শিক্ষার্থীরা। সেই দাবির প্রেক্ষিতে সোমবার নৌমন্ত্রী ‘আন্তরিক দুঃখ প্রকাশ’ করে বলেন, ক্ষমা তিনি নন, দুর্ঘটনার সঙ্গে জড়িতদের চাওয়া উচিৎ।

সোমবার (৩০ জুলাই) সচিবালযে সাংবাদিকদের সঙ্গে আলাপকালে নৌমন্ত্রী বলেন, ‘ক্ষমা তো আমার চাওয়ার কথা না, ক্ষমা চাইবে যারা এই দুর্ঘটনার ঘটিয়েছে। তবে যেহেতু আমি শ্রমিক রাজনীতি করি, অবশ্যই আন্তরিকভাবে অত্যন্ত দুঃখ প্রকাশ করছি।’

সড়ক দুর্ঘটনায় দোষী সাব্যস্তদের আইন করে সাজার মেয়াদ বাড়ানো হবে কিনা, এমন প্রশ্নের উত্তরে তিনি বলেন, ‘পৃথিবীর কোনো দেশে দুর্ঘটনার জন্য মৃত্যুদণ্ডের বিধান নেই। আমার জানামতে অতিরিক্ত সাজা ৫ বছর পর্যন্ত আছে, সম্ভবত পাকিস্তানে। ভারতে দুই বছর, নেপালে দুই বছর। আমাদের তিন বছর। এই সাজা বাড়বে কিনা- সেটা মিটিঙে আলোচনা হবে।’

শাজাহান খান পরিবহন শ্রমিকদের শীর্ষ সংগঠন বাংলাদেশ সড়ক পরিবহন শ্রমিক ফেডারেশনের কার্যকরী সভাপতি। নৌপরিবহন মন্ত্রণালয়ের দায়িত্বে থাকলেও শাজাহান খানকে প্রায়ই পরিবহন শ্রমিকদের স্বার্থ সংশ্লিষ্ট বিষয়ে স্বোচ্ছার দেখা যায়।

রোববার (২৯ জুলাই) দুপুরে রাজধানীর বিমানবন্দর সড়কের কুর্মিটোলা জেনারেল হাসপাতালের সামনে এমইএস বাস স্ট্যান্ডে জাবালে নূর পরিবহনের বাসচাপায় দুই শিক্ষার্থী নিহত হন। একই ঘটনায় আহত হয়েছেন আরও ১১-১৫ জন শিক্ষার্থী।

**রাজনৈতিক, ধর্মবিদ্বেষী ও খারাপ কমেন্ট করা থেকে বিরত থাকুন।**

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here