মহেশ ভাট, বলিউডের প্রযোজক-পরিচালক। এক ডাকে তাকে চেনেন সকলে। তার কাজ তার হয়ে কথা বলেছে দীর্ঘদিন। পাশাপাশি তার ক্যাসানোভা ইমেজও কম আকর্ষণীয় নয়। সেই মহেশ এ বার খোলসা করলেন নিজের জীবনের এক চরম সত্য।

‘আমি জানি না বাবা কী জিনিস। বাবার কোনও স্মৃতিই নেই আমার। তাই বাবার ভূমিকা কেমন হওয়া উচিত তাও জানি না। কারণ আমি এক মুসলিম মায়ের জারজ সন্তান। আমার মায়ের নাম শিরিন মহম্মদ আলি’— হিন্দুস্তান টাইমসকে দেওয়া একান্ত সাক্ষাত্কারে সম্প্রতি এই কথা বলেছেন মহেশ।

কিন্ত তার নাম মহেশ ভাট হলো কী ভাবে? এই প্রশ্নের উত্তরে মহেশ জানিয়েছেন, তার মা নাকি বলেছিলেন, মহেশের বাবা ছেলের এই নাম রাখতে বলেছিলেন। মহেশ ছোটবেলায় অপেক্ষা করতেন বাবার জন্য। কবে বাবা আসবেন, তার নাম কেন মহেশ রাখলেন তা বুঝিয়ে দেবেন। না! সে অপেক্ষায় কোনও লাভ হয়নি। কারণ কোনও দিনই নাকি মহেশের বাবা ছেলের সঙ্গে দেখা করতে আসেননি।

তবে বাবার পরিচয় মায়ের কাছ থেকে পেয়েছিলেন মহেশ। তার বাবার নাম ছিল নানাভাই ভাট। কিন্তু মহেশের জন্মের পর তার ও তার মায়ের কোনও দায়িত্বই নাকি নেননি নানাভাই।

মায়ের পছন্দ মতো কোনও কাজই নাকি জীবনে করতে পারেননি মহেশ। মায়ের আশা অনুযায়ী ভাল ছেলে হওয়া তার হয়নি। তার কারণ হিসেবে ছোটবেলার এই অন্ধকার অতীতকেই পরোক্ষে দায়ী করেছেন মহেশ। তবে নিজের জীবনের এই চরম সত্যি এ ভাবে প্রকাশ করায় অবাক বলি মহলের একটা বড় অংশ।

**রাজনৈতিক, ধর্মবিদ্বেষী ও খারাপ কমেন্ট করা থেকে বিরত থাকুন।**

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here