প্রথম ইনিংসের মতই সুইংয়ে ভারতীয় ব্যাটসম্যানদের কাবু করলেন জেমস অ্যান্ডারসন।  দ্বিতীয় ইনিংসে সফরকারীদের দ্রুত সময়ের মধ্যে অল্প রানে গুটিয়ে দিতে তাকে দারুণ সঙ্গ দিলেন স্টুয়ার্ট ব্রড। বলতে গেলে এ দুই পেসারের তোপেই রোববার লর্ডস টেস্টে উড়ে গেল ভারত।

দ্বিতীয় টেস্ট ইনিংস ও ১৫৯ রানে জিতেছে ইংল্যান্ড। এর ফলে পাঁচ ম্যাচ টেস্ট সিরিজে ২-০ ব্যবধানে পেছনে পড়ল বিরাট কোহলির দল।

প্রথম ইনিংসে ১০৭ রানে গুটিয়ে যাওয়া ভারত দ্বিতীয় ইনিংসে করতে পারে মাত্র ১৩০ রান। এর আগে ক্রিস ওকসের অপরাজিত ১৩৭ ও জনি বেয়ারস্টোর ৯৩ রানে ভর করে প্রথম ইনিংসে ইংল্যান্ড ৭ উইকেটে ৩৯৬ রানে ইনিংস ঘোষণা করেছিল। তাতে ফলোঅন এড়াতে সফরকারীদের প্রয়োজন পড়েছিল ২৮৯ রান। তবে ব্যাটিং ব্যর্থতায় তার ধারে কাছে যেতে পারেনি বিরাট কোহলিরা। আর সেটা করতে দেননি অ্যান্ডারসন। ডানহাতি এ পেসার প্রথম ইনিংসে ৫ উইকেট নেয়ার পর রোববার নিজের ঝুলিতে পুরেছেন ৪ উইকেট। এদিকে ব্রডও নিয়েছেন ৪টি উইকেট।

প্রথম ইনিংসের মতো রোববার মুরালি বিজয়ের উইকেট দিয়ে ভারতের ধ্বংসস্তুপের শুরুটা করেন অ্যান্ডারসন। টেস্টে দ্বিতীয়বারের মতো শূন্য রানে ফিরেন ভারতীয় ওপেনার। তার পর লোকেশ রাহুলকেও বিদায় করেন এ ডানহাতি পেসার।

এদিকে স্টুয়ার্ট ব্রড দারুণ বোলিংয়ে কাঁপিয়ে দেন ভারতের মিডল অর্ডার। চেতেশ্বর পুজারা, অজিঙ্কা রাহানের প্রতিরোধ ভাঙার পর তুলে নেন আরও দামি উইকেট। ফিরিয়ে দেন থিতু হয়ে যাওয়া কোহলিকে। পরের বলে ব্রড গোল্ডেন ডাকের স্বাদ দেন দিনেশ কার্তিককে।

৬১ রানে ৬ উইকেট হারানো ভারত এর পর পায় নিজেদের সেরা জুটি। সপ্তম উইকেটে ৫৫ রান যোগ করেন হার্দিক পান্ডিয়া ও রবিচন্দ্রন অশ্বিন। এ জুটি ভাঙেন ক্রিস ওকস।    পান্ডিয়াকে ফিরেয়ে দেন এ পেসার। এরপর শূন্য রানে কুলদীপ যাদব ও মোহাম্মদ শামিকে বিদায় করেন অ্যান্ডারসন। কিছুক্ষণ পর ইশান্ত শর্মার উইকেট তুলে নেন সেই ওকস।

৩৩ রানে অপরাজিত থাকেন অশ্বিন। প্রথম ইনিংসের মতো এবারও তিনি ভারতের সর্বোচ্চ রান সংগ্রাহক।

২৩ রানে ৪ উইকেট নিয়ে ইংল্যান্ডের সেরা বোলার অ্যান্ডারসন। ব্রড ৪ উইকেট নেন ৪৪ রানে। সেঞ্চুরি আর দুই ইনিংস মিলিয়ে ৪ উইকেট নিয়ে ম্যাচ সেরা হয়েছেন ওকস।

আগামী শনিবার ট্রেন্ট ব্রিজে শুরু হবে ইংল্যান্ড-ভারতের মধ্যেকার তৃতীয় টেস্ট।

সংক্ষিপ্ত স্কোর:

ভারত ১ম ইনিংস: ১০৭ (বিজয় ০, রাহুল ৮, পুজারা ১, কোহলি ২৩, রাহানে ১৮, পান্ডিয়া ১১, কার্তিক ১, অশ্বিন ২৯, কুলদীপ ০, শামি ১০*, ইশান্ত ০; অ্যান্ডারসন ৫/২০, ব্রড ১/৩৭, ওকস ২/১৯, কারান ১/২৬)

ইংল্যান্ড ১ম ইনিংস: ৮৮.১ ওভারে ৩৯৬/৭ ডিক্লে. (কুক ২১, জেনিংস ১১, রুট ১৯, পোপ ২৮, বেয়ারস্টো ৯৩, বাটলার ২৪, ওকস ১৩৭*, কারান ৪০; ইশান্ত ১/১০১, শামি ৯৬/৩, কুলদীপ ০/৪৪, পান্ডিয়া ৩/৬৬, অশ্বিন ০/৬৮)

ভারত ২য় ইনিংস: ৪৭ ওভারে ১৩০ (বিজয় ০, রাহুল ১০, পুজারা ১৭, রাহানে ১৩, কোহলি ১৭, পান্ডিয়া ২৬, কার্তিক ০, অশ্বিন ৩৩*, কুলদীপ ০, শামি ০, ইশান্ত ২; অ্যান্ডারসন ৪/২৩, ব্রড ৪/৪৪, ওকস ২/২৪, কারান ০/২৭)

ফল: ইংল্যান্ড ইনিংস ও ১৫৯ রানে জয়ী

সিরিজ: পাঁচ ম্যাচের সিরিজে ইংল্যান্ড ২-০তে এগিয়ে

ম্যাচ সেরা: ক্রিস ওকস

**রাজনৈতিক, ধর্মবিদ্বেষী ও খারাপ কমেন্ট করা থেকে বিরত থাকুন।**

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here