ম্যাচটা বাংলাদেশের জন্য ঐতিহাসিকই ছিল। কাতারকে হারিয়ে প্রথমবারের মতো এশিয়ান গেমসের ফুটবলের দ্বিতীয় রাউন্ডে খেলার যোগ্যতা অর্জন করেছিল টাইগার যুবারা। কিন্তু শেষটা রাঙাতে পারলো না। শেষ আটে খেলা হলো না। উত্তর কোরিয়ার বিপক্ষে ৩-১ গোলে পরাজিত হয়েছে বাংলাদেশ অনূর্ধ্ব-২৩ ফুটবল দল।

ইন্দোনেশিয়ার উইবাওয়া মুক্তি স্টেডিয়ামে শুরু থেকেই বল দখলের লড়াইয়ে এগিয়েছিল উত্তর কোরিয়া। প্রতিপক্ষের আক্রমণাত্মক ফুটবলের সামনে বার বার ভেঙে পড়ছিল বাংলাদেশের ডিফেন্স। দুটো সুযোগ নষ্ট করার পর ১৪ মিনিটে পেনাল্টি গোলে উত্তর কোরিয়া এগিয়ে যায়।

পেনাল্টির সিদ্ধান্ত অবশ্য কিছুটা বিতর্কিত। বক্সের মধ্যে প্রতিপক্ষের ক্রস অনিচ্ছাকৃতভাবে হাতে লাগে ডিফেন্ডার সুশান্ত ত্রিপুরার। কিন্তু পেনাল্টির বাঁশি বাজাতে দ্বিধা করেননি ব্রুনাইয়ের রেফারি হাসান মাহফুদ। কিম ইয়ু সংয়ের শট ডানদিকে ডাইভ দিয়েও ঠেকাতে পারেননি গোলকিপার আশরাফুল ইসলাম রানা।

৩৮ মিনিটে দ্বিগুণ হয়ে যায় ব্যবধান। কিম ইয়ু সংয়ের পাস থেকে স্কোরলাইন ২-০ করেন হান ইয়ং থায়ে।

বিরতির পরও উত্তর কোরিয়ার আক্রমণে ভাটা পড়েনি। ম্যাচের তৃতীয় গোলের জন্ম ৬৯ মিনিটে। সো জং হিওকের কাট ব্যাক থেকে ক্যাং কুক চলের প্লেসিং শটে  জয় নিশ্চিত হয়ে যায় কোরিয়ানদের।

বাংলাদেশের গোলটি হয়েছে ইনজুরি সময়ের প্রথম মিনিটে। রবিউল হাসানের ক্রস কোরিয়ান গোলকিপার ক্লিয়ার করতে না পারলে বল চলে আসে সাদউদ্দিনের পায়ে। এই তরুণ ফরোয়ার্ডের শট জাল খুঁজে পেলেও গোলটি শুধু সান্ত্বনাই দিতে পেরেছে জেমি ডে’র শিষ্যদের।

**রাজনৈতিক, ধর্মবিদ্বেষী ও খারাপ কমেন্ট করা থেকে বিরত থাকুন।**

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here