আইন শৃঙ্খলা সংস্থাগুলো দেশে দুর্নীতিতে শীর্ষে রয়েছে বলে জানিয়েছে ট্রান্সপারেন্সি ইন্টারন্যাশনাল বাংলাদেশ (টিআইবি)। দুর্নীতিবিরোধী সংগঠনটি আজ বৃহস্পতিবার তাদের সর্বশেষ খানা জরিপ ২০১৭ থেকে এ তথ্য জানিয়েছে। জরিপে দেশের ১৬টি খাতের তুলনামূলক দুর্নীতির একটি চিত্রও তুলে ধরেছে টিআইবি।

দেশের সেবা খাতের মধ্যে দুর্নীতির বিস্তারের দিক থেকে আইন শৃঙ্খলা সংস্থার পরই রয়েছে পাসপোর্ট ও বাংলাদেশ রোড ট্রান্সপোর্ট অথরিটি (বিআরটিএ)। এর পর শীর্ষ সাতে রয়েছে, বিচার, ভূমি, শিক্ষা ও স্বাস্থ্য খাত।

bbb

বৃহস্পতিবার রাজধানীর ধানমন্ডিতে মাইডাস সেন্টারে টিআইবির কার্যালয়ে এ জরিপের ফলাফল প্রকাশ করা হয়। টিআইবির নির্বাহী পরিচালক ইফতেখারুজ্জামান ও চেয়ারপারসন সুলতানা কামাল এসময় উপস্থিত ছিলেন।

জরিপের ফলাফলে জানানো হয়, ২০১৭ সালে বিভিন্ন সেবা পেতে জনগণকে ১০ হাজার ৬৮৮ কোটি টাকারও বেশি ঘুষ দিতে হয়েছে। যা সেবছরের দেশের বাজেটের ৩ দশমিক ৪ শতাংশের সমতুল্য। ২০১৫ সালে ঘুষের পরিমাণ ছিল ৮ হাজার ৮২১ কোটি টাকা।

ccc

২০১১ সালের আদমশুমারির তথ্য অনুযায়ী দেশের খানার সংখ্যা ৩ কোটি ৭৩ লাখ। টিআইবি ১৫ হাজার ৫৮১ টি খানা থেকে তথ্য নিয়ে জরিপটি পরিচালনা করেছে।

টিআইবির তথ্য বলছে, জরিপে অন্তর্ভুক্ত বিভিন্ন সেবাখাতে দুর্নীতির শিকার খানার হার ৬৬.৫ শতাংশ। এর মধ্যে ঘুষ দিতে হয়েছে ৪৯.৮ শতাংশ ক্ষেত্রে। এর মধ্যে শহরের তুলনায় গ্রামাঞ্চলে আনুপাতিকভাবে বেশি মানুষকে ঘুষ দিতে হয়েছে। ঘুষের শিকার খানা’র মধ্যে ৮৯ শতাংশ ক্ষেত্রে কারণ হিসেবে ‘ঘুষ না দিলে সেবা পাওয়া যায় না’ চিহ্নিত করেছে।

২০১৭ সালে প্রক্কলিত মাথাপিছু ঘুষের পরিমাণ ৬৫৮ টাকা যা ২০১৫ সালে ছিল ৫৩৩ টাকা।

**রাজনৈতিক, ধর্মবিদ্বেষী ও খারাপ কমেন্ট করা থেকে বিরত থাকুন।**

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here