পাঁচ ম্যাচের টেস্ট সিরিজের তিনটি ম্যাচ শেষ। বার্মিংহামের এজবাস্টনে ৩১ রানে হারেন বিরাট কোহলিরা। দ্বিতীয় ম্যাচে ইনিংস ১৫৯ রানে লর্ডসে ম্যাচ খোয়ায় ভারতীয় দল। ২-০ পিছিয়ে থাকা অবস্থায় দুরন্ত কামব্যাক করে ট্রেন্ট ব্রিজে ইংল্যান্ডকে ২০৩ রানে হারায় ভারত। সাউদাম্পটনে এবার চতুর্থ ম্যাচ। কারা থাকতে পারেন ভারতীয় দলে। দেখে নিন সম্ভাব্য একাদশ।

কে এল রাহুল

তৃতীয় টেস্টে দুই ইনিংসেই ভারতকে একটা মজবুত শুরু দিয়েছেন রাহুল। তাই মূরলী বিজয় নন, সাউদাম্পটনেও রাহুলকেই বেছে নেওয়া হতে পারে।

শিখর ধওয়ন

ট্রেন্ট ব্রিজে ম্যাচ জেতার পিছনে ভূমিকা ছিল শিখরের ব্যাটেরও। ধওয়ন-রাহুল জুটির ওপেনিং স্বস্তি এনেছে ভারতীয় শিবিরে। তাই ওপেনার হিসেবে রাহুলের সঙ্গে তিনিই সম্ভবত থাকছেন।

চেতেশ্বর পূজারা

টানা তিন ইনিংসের ব্যর্থতার পর নটিংহাম টেস্টের দ্বিতীয় ইনিংসে ফর্মে ফিরেছেন। তিন নম্বরে পূজারা সেই ফর্মই ধরে রাখবে, আশায় ভারতীয় শিবির।

বিরাট কোহলি

অধিনায়ক নিজে চার নম্বরে নামবেন। তৃতীয় টেস্টের প্রথম ইনিংসে বিরাটের ব্যাট থেকে অল্পের জন্য সেঞ্চুরি আসেনি। ৯৭ রানে আউট হয়ে ফিরতে হয়েছে। আর দ্বিতীয় ইনিংসে তার ব্যাট থেকে এসেছে ১০৩ রান। কোহলির ম্যাচের সেরা পারফরম্যান্সে ভর করে ২০৩ রানে নটিংহ্যামে ইংল্যান্ডকে হারায় ভারত।

অজিঙ্ক রাহানে

কোহলির সঙ্গে পার্টনারশিপে আগের ম্যাচে করেছেন ১৫৯ রান। রাহানে বড় রানের জুটিতে নিজস্ব ছন্দে ব্যাট ধরেছেন। পাঁচ নম্বরে তাকে ছাড়া আর কাউকে কি ভাববে ভারতীয় দল?

হার্দিক পাণ্ড্য

আগের ম্যাচে ছয়টি উইকেট ছিল তার দখলে। সব মিলিয়ে করেছেন ৭০ রানও। যে কোনও জোরে বোলারের মতো ঘণ্টায় ১৪০ কিলোমিটার গতিবেগেও বল করতে পারেন। আউটসুইং তার প্রধান অস্ত্র।

ঋষভ পন্থ

উইকেটকিপার হিসেবে তারই থাকার কথা। টিম ম্যানেজমেন্টের তার প্রতি আস্থা রয়েছে। তাই খুব একটা বদল না হলে তিনিই থাকবেন সাত নম্বরে। সাতটা ক্যাচ নিয়েছেন আগের ম্যাচে।

রবিচন্দ্রন অশ্বিন

মোটামুটি ফর্মে থাকা অভিজ্ঞ স্পিনার রবিচন্দ্রন অশ্বিন। তবে চোটে খানিকটা কাবু। তিনি ফিট না থাকলে বাঁ হাতি স্পিনিং অলরাউন্ডার রবীন্দ্র জাদেজা প্রথম একাদশে থাকতে পারেন। তবে অশ্বিনের থাকার সম্ভাবনাই বেশি।

জসপ্রীত বুমরা

চোট সারিয়ে ফিরে এসেই গত ম্যাচে নিয়েছিলেন পাঁচ উইকেট। শুধু তাই নয়, দ্বিতীয় নতুন বলে করেছিলেন আগুন-ঝরানো স্পেল। তাই দলে তার থাকা নিয়ে সংশয় খুব একটা নেই।

ইশান্ত শর্মা

কবজির খেলে বিপক্ষের ব্যাটসম্যানকে কাবু করতে পারবেন বলে মনে করা হচ্ছে। ইংল্যান্ডের আবহাওয়ার সঙ্গে মানিয়ে নেওয়ার অভিজ্ঞতাকেই কাজে লাগাবেন। তাই তার দলে থাকার সম্ভাবনা প্রায় নিশ্চিত।

মহম্মদ শামি

ভারতীয় পেস আক্রমণ বিপক্ষ শিবিরে যে ত্রাসের সৃষ্টি করছে, তার একটা অন্যতম কারণ শামি। সাউদাম্পটনে দলে থাকার কথা তারও।

**রাজনৈতিক, ধর্মবিদ্বেষী ও খারাপ কমেন্ট করা থেকে বিরত থাকুন।**

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here