বর্তমান সরকারের সময় বিদ্যুৎ ও জ্বালানি খাতে ব্যাপক উন্নয়ন হয়েছে—উল্লেখ করে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বলেন, দেশের ৯০% মানুষ বিদ্যুৎ পাচ্ছে—প্রত্যন্ত অঞ্চলে বিদ্যুতের সরবরাহ বাড়ায় উন্নয়ন তরান্বিত হচ্ছে।

বৃহস্পতিবার সকালে রাজধানীর ইন্টারন্যাশনাল কনভেনশন সিটি বসুন্ধরায় বিদ্যুৎ ও জ্বালানি সপ্তাহের উদ্বোধন শেষে তিনি এ কথা বলেন।

প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বলেছেন, ২০৪১ সালের মধ্যে ৬০ হাজার মেগাওয়াট বিদ্যুৎ উৎপাদনের মহাপরিকল্পনা নিয়েছে সরকার। সবাইকে বিদ্যুৎ ব্যবহারে সাশ্রয়ী হওয়ার আহ্বান জানিয়েছেন তিনি।

সরকার ২০৪১ সালের মধ্যে ৬০ হাজার মেগাওয়াট বিদ্যুৎ উৎপাদনের মহাপরিকল্পনা নিয়েছে বলে জানান প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা।

নাগরিকদের আর্থসামাজিক অবস্থার উন্নতির ফলে ভবিষ্যতে বিদ্যুতের ভর্তুকি উঠে যেতে পারে জানিয়ে প্রধানমন্ত্রী বিদ্যুৎ অপচয়রোধে সবাইকে সচেতন হওয়ারও আহ্বান জানান।

বিদ্যুৎ উদপাদনে মহাপরিকল্পনা গ্রহণ করেছে সরকার—উল্লেখ করে শেখ হাসিনা বলেন, বিমসটেক বিদ্যুৎ গ্রিড লাইন তৈরির মাধ্যমে আঞ্চলিক সহযোগিতার ক্ষেত্রে যুগান্তকারী পদক্ষেপ নেয়া হচ্ছে। বাংলাদেশ ২০ হাজার মেগাওয়াট বিদ্যুৎ উদপাদনের সক্ষমতা অর্জন করেছে।

ভবিষ্যতে বিদ্যুৎ খাতে আর ভর্তুকি নাও দেয়া হতে পারে- ফলে উৎপাদন খরচ গ্রাহককেই দিতে হবে বলেও জানান প্রধানমন্ত্রী।

ভবিষ্যৎ প্রজন্মের জন্য উন্নত সমৃদ্ধ জীবন নিশ্চিত করতে সরকার কাজ করে যাচ্ছে—জানিয়ে তিনি আরো বলেন, বিদ্যুৎ বিতরণে সিস্টেম লস কমিয়ে আনা হয়েছে আর প্রিপেইড মিটারের ব্যবহারে তা আরো কমবে।

পাশাপাশি সবাইকে বিদ্যুৎ ও জ্বালানির অপচয় রোধে সচেতন হওয়ার আহ্বানও জানান শেখ হাসিনা।

তিনি আরো বলেন, ভারত, ভুটান ও নেপাল থেকে বিদ্যুৎ আমদানির প্রক্রিয়া চলছে।

এর আগে বিদ্যুৎ ও জ্বালানি খাতে অবদান রাখায় ৪৭ ব্যক্তি ও ৩৫ প্রতিষ্ঠানকে পুরস্কর তুলে দেন প্রধানমন্ত্রী।

**রাজনৈতিক, ধর্মবিদ্বেষী ও খারাপ কমেন্ট করা থেকে বিরত থাকুন।**

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here