ভারতে সমকামিতাকে আর অপরাধ হিসেবে দেখা হবে না। বৃহস্পতিবার দেশটির সুপ্রিম কোর্টের এক ঐতিহাসিক রায়ের মাধ্যমে স্বীকৃতি হয়েছে দেশটির সমকামীদের দীর্ঘদিনের চাওয়া।

ব্রিটিশ আমলের বিতর্কিত ৩৭৭ ধারাটি বাতিল করেছে সুপ্রিম কোর্ট। রায় প্রদানকালে আদালতের প্রধান বিচারক দীপক মিশ্র বলেন, ‘যৌনতার ভিত্তিতে যে কোন বৈষম্য মানুষের মৌলিক অধিকার লঙ্ঘন করে।’

তিনি আরো বলেন, ‘সামাজিক নৈতিকতার নাম করে একজন ব্যক্তির মৌলিক অধিকারও ক্ষুন্ন করা যায় না। ভারতের সংবিধান একজন সাধারণ নাগরিককে যেসব অধিকার দেয়, তার সবগুলোই সমকামীদের প্রাপ্য।’

বিচারপতি দীপক মিশ্রের সঙ্গে সহমত পোষণ করে একই ধরনের বক্তব্য দিয়েছেন বাকি চার বিচারপতিও।

২০০১ সালে ৩৭৭ ধারার বিরুদ্ধে সর্বপ্রথম আপত্তি জানায় ভারতের স্বে‌চ্ছাসেবী সংগঠন নাজ ফাউন্ডেশন। তারা ঔপনিবেশিক আমলের ওই ধারার বিরুদ্ধে দিল্লি হাইকোর্টে চ্যালেঞ্জ করে। যার ফলশ্রুতিতে ২০০৯ সালে দিল্লি হাইকোর্ট রায় দেয়, সম্মতির ভিত্তিতে দুই প্রাপ্তবয়স্কের মধ্যে যৌন সম্পর্ক অপরাধ নয়।

পরে দিল্লি হাইকোর্টের এই রায়ের বিরুদ্ধে সুপ্রিম কোর্টে যান একাধিক ব্যক্তি ও সংগঠন। ২০১৩ সালে দিল্লি হাইকোর্টের রায় খারিজ করে সুপ্রিম কোর্ট জানায়, ৩৭৭ ধারার সাংবিধানিক বৈধতা আছে। সমকামিতাকে অপরাধ মুক্ত ঘোষণা করতে হলে সংসদে নতুন আইন পাশ করতে হবে।

পরে এ নিয়ে নতুন রিট আবেদন করা হয় এবং শুরু হয় আইনি লড়াই। আজ বৃহস্পতিবার ২০১৩ সালের রায়কে অগ্রাহ্য করে ৩৭৭ ধারাকে বাতিল ঘোষনা করে সুপ্রিম কোর্ট। যার প্রেক্ষিতে স্বীকৃত হলো ভারতীয় সমকামী গোষ্ঠীর দীর্ঘদিনের চাহিদা।

**রাজনৈতিক, ধর্মবিদ্বেষী ও খারাপ কমেন্ট করা থেকে বিরত থাকুন।**

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here