ইরানের আণবিক শক্তি সংস্থার প্রধান আলী আকবর সালেহি হুঁশিয়ারি দিয়ে বলেছেন, ছয় জাতিগোষ্ঠীর সঙ্গে তার দেশের স্বাক্ষরিত পরমাণু সমঝোতা বাতিল হয়ে গেলে তার পরিণতি হবে ভয়াবহ এবং ইরান আগের চেয়ে অনেক শক্তিমত্তার সঙ্গে নিজের পরমাণু কর্মসূচির বিস্তার ঘটাবে।

বার্তা সংস্থা অ্যাসোশিয়েটেড প্রেসকে দেয়া এক বিশেষ সাক্ষাৎকারে তিনি এ হুঁশিয়ারি উচ্চারণ করেন। তিনি বলেন, মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প পরমাণু সমঝোতা থেকে বেরিয়ে যাওয়ার যে সিদ্ধান্ত নিয়েছেন তাতে আমেরিকারই ক্ষতি হয়েছে।

আলী আকবর সালেহি বলেন, মার্কিন প্রেসিডেন্ট ভেবেছেন বলপ্রয়োগের মাধ্যমে সব সমস্যার সমাধান করা যাবে। কিন্তু পরমাণু সমঝোতার ক্ষেত্রে তার বলপ্রয়োগের নীতি ব্যর্থ হবে এবং আমেরিকাই ক্ষতিগ্রস্ত হবে।

ট্রাম্পের এ পদক্ষেপ সত্ত্বেও বাকি পক্ষগুলোর সহযোগিতার মাধ্যমে পরমাণু সমঝোতা টিকে থাকবে বলে সালেহি আশা প্রকাশ করেন।

একইসঙ্গে তিনি সতর্ক করে দিয়ে বলেন, ইরানের পরমাণু বিজ্ঞানীদের বিরুদ্ধে হামলা হলে তার পরিণতি হবে বিপর্যয়কর।

ইরানের আণবিক শক্তি সংস্থার প্রধান এর আগে সোমবার জানিয়েছিলেন, সর্বোচ্চ নেতা আয়াতুল্লাহিল উজমা খামেনেয়ীর নির্দেশ বাস্তবায়ন করার লক্ষ্যে অত্যাধুনিক সেন্ট্রিফিউজ নির্মাণের জন্য একটি বিশাল হলরুম স্থাপন করা হয়েছে।

ইরানের সর্বোচ্চ নেতা গত ৪ জুন তার দেশের ইউরেনিয়াম সমৃদ্ধকরণের সক্ষমতা এক লাখ ৯০ হাজার এসডাব্লিউইউতে উন্নীত করার নির্দেশ দেন। তার ওই নির্দেশের দুই দিন পর সালেহি বলেছিলেন, আগামী ১০ মাসের মধ্যে আয়াতুল্লাহিল উজমা খামেনেয়ীর এ নির্দেশ বাস্তবায়ন করা সম্ভব হবে।

২০১৫ সালে ছয় জাতিগোষ্ঠীর সঙ্গে স্বাক্ষরিত পরমাণু সমঝোতা থেকে গত মে মাসে আমেরিকাকে বের করে নেন ট্রাম্প। কিন্তু সমঝোতার বাকি পক্ষগুলো অর্থাৎ ব্রিটেন, ফ্রান্স, জার্মানি, রাশিয়া, চীন ও ইউরোপীয় ইউনিয়ন এ সমঝোতা বাস্তবায়ন অব্যাহত রাখার প্রত্যয় ব্যক্ত করেছে। এর ফলে আন্তর্জাতিক অঙ্গনে এই ইস্যুতে একঘরে হয়ে পড়েছে আমেরিকা।

**রাজনৈতিক, ধর্মবিদ্বেষী ও খারাপ কমেন্ট করা থেকে বিরত থাকুন।**

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here