মিয়ানমার থেকে বাংলাদেশে নির্যাতিত হয়ে পালিয়ে আসা রোহিঙ্গাদের স্থায়ীভাবে আশ্রয় দেওয়ার কোনও পরিকল্পনা সরকারের নেই বলে জানিয়েছেন পররাষ্ট্র সচিব শহিদুল হক।

ভিয়েতনামের রাজধানী হ্যানয়ে বিশ্ব অর্থনৈতিক ফোরামে ব্রিটিশ বার্তা সংস্থা রয়টার্সকে দেওয়া এক সাক্ষাতকারে একথা বলেন তিনি।

মানবিক এই সংকট মোকাবিলায় উন্নত দেশগুলোকে এগিয়ে আসার আহ্বান জানিয়েছেন তিনি রয়টার্সকে বলেন, অন্যান্য দেশ কিংবা মিয়ানমার তাদের না নেওয়া পর্যন্ত রোহিঙ্গা শিবিরেই থাকতে হবে তাদের।

এদিকে কয়েক মাসের মধ্যেই কক্সবাজার ক্যাম্প থেকে ভাসনচরে নিয়ে যাওয়া হবে রোহিঙ্গাদের জানান শহীদুল হক। তবে সেটা অস্থায়ী।

দেশটির নিরাপত্তা বাহিনীর স্থাপনায়  হামলার পর গতবছর ২৫ অগাস্ট থেকে রাখাইনে রোহিঙ্গাদের ওপর সেনাবাহিনীর দমন অভিযান শুরু হয়। নিপীড়নের মুখে বাংলাদেশে পালিয়ে আসে সাত লাখ। সম্প্রতি জাতিসংঘ জানিয়েছে, বাংলাদেশে অবস্থান করা রোহিঙ্গাদের সংখ্যা দশ লাখের বেশি। বাংলাদেশ সরকারের দাবি, রোহিঙ্গাদের সংখ্যা ১১ লাখের বেশি।

এদিকে মিয়ানমারের সেনাবাহিনী রাখাইনের অভিযানে ‘গণহত্যার অভিপ্রায়’ থেকেই রোহিঙ্গাদের ওপর নির্বিচারে হত্যা ও ধষর্ণের ঘটনা ঘটিয়েছে বলে জাতিসংঘের একটি স্বাধীন তথ্যানুসন্ধান মিশনের প্রতিবেদনে সম্প্রতি বলা হয়েছে।

গত ডিসেম্বরে রোহিঙ্গাকে ফিরিয়ে নেওয়ার জন্য বাংলাদেশের সঙ্গে মিয়ারমার একটি চুক্তি করলেও এখনও বাস্তবায়ন হয়নি।

**রাজনৈতিক, ধর্মবিদ্বেষী ও খারাপ কমেন্ট করা থেকে বিরত থাকুন।**

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here