আন্দোলনে ব্যর্থ হয়ে বিএনপি জাতিসংঘে নালিশ করতে গেছে বলে মন্তব্য করেছেন আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ওবায়দুল কাদের।

শুক্রবার রাজধানীতে আনোয়ার খান মডার্ন মেডিকেল কলেজের ১০ বছর পূর্তির অনুষ্ঠান শেষে সাংবাদিকদের প্রশ্নের জবাবে তিনি এ মন্তব্য করেন।

আওয়ামী লীগের নামে নালিশ করতে বিএনপি লবিস্ট নিয়োগ দিয়েছে। আমাদের চাপ দেয়ার জন্য এটা করা হয়েছে। আমাদের শেকড়ও দুর্বল নয়। আমাদের শেকড় বাংলাদেশের মাটি ও মানুষের বহু গভীরে। অন্য কারো চাপে আমরা নতি স্বীকার করবো না, আমরা নতি স্বীকার করবো বাংলাদেশের মানুষের কাছে।

বললেন আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক সড়ক পরিবহন ও সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদের।

তিনি বলেন, লবিস্ট নিয়োগের কি আছে? বিএনপি লবিস্ট নিয়োগ করতে পারে না। বাংলাদেশ কি পাকিস্তান, সুদান, সোমালিয়া, ইরাক, আফগানিস্তান, দক্ষিণ সুদান, ইয়েমেন ও যুদ্ধ বিধ্বস্ত দেশ সিরিয়া হয়ে গেছে, যে লবিস্ট নিয়োগ করতে হবে।

তিনি আরও বলেন, বিএনপি এতো টাকা কোথায় থেকে পেল। এতো টাকা লন্ডন থেকে এসেছে। লন্ডন মানে আপনারা বুঝতেই পারছেন ওখানে কে থাকে।

কাদের বলেন, বিএনপি আর আন্দোলন করতে পারবে না। তাদের এখন নালিশই পুঁজি।

মন্ত্রী বলেন, আমি বুকে হাত দিয়ে বলতে পারি চুরি করে খাই না। সততাই বড় সম্পদ। কিছু লোক কঠোর পরিশ্রম করে টাকার জন্য। আমি কঠোর পরিশ্রম করি কাজকে ভালোবেসে। কেউ হতাশ হবেন না। জীবনই একটা চ্যালেঞ্জ। যে নদীতে ঢেউ নেই, সেটা নদী না।

মন্ত্রী আরও বলেন, হাসপাতালে রাজনীতি করবেন না, হাসপাতালের বাইরে রাজনীতি করতে হবে। ভালো ফলাফল করে কিছু হবে না যদি লাইফে ডিসিপ্লিন না থাকে। যদি কমিটমেন্ট না থাকে। তোমরা দেশের সেবা করো। ভালো ফলাফল করে কী লাভ যদি ভালো ডাক্তার হিসেবে জনগণকে সেবা না দেয়া যায়।

ওবায়দুল কাদের বলেন, জীবন যাপনে শৃ্ঙ্খলা আনতে হবে। আর্লি রাইজিং ইজ মোস্ট ইম্পর্টেন্ট।

অনুষ্ঠান শুরু আগে আনোয়ার খান মডার্ন মেডিকেল কলেজের ১০ম প্রতিষ্ঠা বার্ষিকী ও ১ম পুনর্মিলনী উপলক্ষে শোভাযাত্রা বের করে প্রতিষ্ঠানের শিক্ষক-শিক্ষার্থীরা। শুক্রবার সকালে রাজধানীর ধানমণ্ডি আট নম্বর সড়কের নিজস্ব ক্যাম্পাস থেকে শোভাযাত্রাটি বের হয়ে মিরপুর রোড হয়ে কলাবাগান ঘুরে ক্যাম্পাসে ফিরে আসে।

এ সময় উপস্থিত ছিলেন আনোয়ার খান মডার্ণ মেডিকেল কলেজের অধ্যক্ষ অধ্যাপক ডাঃ মোঃ ফজলুর রহমান, উপাধ্যক্ষ অধ্যাপক ডাঃ মোঃ এখলাসুর রহমান, অধ্যাপক ডাঃ মোঃ তাহমিনুর রহমান (প্যাথলজী বিভাগ), অধ্যাপক ডাঃ মোঃ মাহফুজার রহমান (কমিউনিটি মেডিসিন বিভাগ), অধ্যাপক ডাঃ কে এম এইচ এস সিরাজুল হক (কার্ডিওলজী বিভাগ), অধ্যাপক ডাঃ এজেডএম মাইদুল ইসলাম (স্কিন অ্যাণ্ড ভিডি বিভাগ), অধ্যাপক ডাঃ ফিরোজ আহম্মদ কোরাইশি (নিউরো মেডিসিন), অধ্যাপক ডাঃ মোঃ মোস্তাফিজুর রহমান (মেডিসিন বিভাগ), অধ্যাপক ডাঃ সৈয়দ খায়রুল আমিন (পেডিয়াট্রিক বিভাগ), অধ্যাপক ডাঃ এম আলমগীর চৌধুরী (ইএনটি বিভাগ), অধ্যাপক ডাঃ এহ্তেশামুল হক (অনকোলজি বিভাগ), অধ্যাপক ডাঃ মোঃ হাবিবুজ্জামান চৌধুরী (ফরেনসিক মেডিসিন বিভাগ), অধ্যাপক ডাঃ রোকেয়া বেগম (ফিজিওলজি বিভাগ), অধ্যাপক ডাঃ মোঃ রাজিবুল আলম (মেডিসিন বিভাগ), অধ্যাপক ডাঃ এ.কে.এম আমিনুল হক (মেডিসিন বিভাগ), অধ্যাপক ডাঃ মনোয়ারুল ইসলাম (অর্থোপেডিক বিভাগ), অধ্যাপক ডাঃ মোঃ সানোয়ার হোসেন (চক্ষু বিভাগ), অধ্যাপক ডাঃ এমআইএম নাসিম সোবহানী (সার্জারি বিভাগ), অধ্যাপক ডাঃ এএফএম সাইফুল ইসলাম (ফার্মাকোলজি বিভাগ), অধ্যাপক ডাঃ সুলতানা রোকেয়া মান্নান (ফিজিওলজী বিভাগ), সহযোগী অধ্যাপক ডাঃ জাকিয়া সুলতানা সহিদ (চক্ষু বিভাগ), সহযোগী অধ্যাপক ডাঃ সুহা জেসমিন (গাইনী এন্ড অব্স), সহযোগী অধ্যাপক ডাঃ আতিকুর রহমান (কমিউনিটি মেডিসিন বিভাগ), সহযোগী অধ্যাপক ডাঃ সৈয়দ মোঃ তানজিলুল হক (ফরেনসিক মেডিসিন বিভাগ) প্রমুখ।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here