রাশিয়ার প্রেসিডেন্ট ভ্লাদিমির পুতিন বলেছেন, সিরিয়ার ওপর ইহুদিবাদী ইসরাইল যে বিমান হামলা চালিয়েছে তা দেশটির সার্বভৌমত্বের চরম লঙ্ঘন। সিরিয়ার আকাশ থেকে রাশিয়ার একটি আইএল-২০ গোয়েন্দা বিমান ক্ষেপণাস্ত্রের আঘাতে বিধ্বস্ত হওয়ার পর যখন মস্কো ও তেল আবিবের মধ্যে উত্তেজনা বাড়ছে তখন পুতিন এই মন্তব্য করলেন।

সোমবার রাতে সিরিয়ার আকাশে রুশ বিমানটি বিধ্বস্ত হয়ে ১৫ সেনা নিহত হয়। এরইমধ্যে রুশ প্রতিরক্ষা মন্ত্রণালয় বিমান ভূপাতিত হওয়ার ঘটনায় ইসরাইলকে দায়ী করেছে। এ নিয়ে রুশ প্রেসিডেন্ট পুতিন ইহুদিবাদী ইসরাইলের যুদ্ধবাজ প্রধানমন্ত্রী বেনিয়ামিন নেতানিয়াহুর সঙ্গে গতকাল (মঙ্গলভার) টেলিফোনে কথা বলেন।

এ সম্পর্কে ক্রেমলিন এক প্রেস বিজ্ঞপ্তিতে জানিয়েছে, “প্রেসিডেন্ট পুতিন এই সত্য তুলে ধরেছেন যে, সিরিয়ার সার্বভৌমত্ব লঙ্ঘন করে ইসরাইলি বিমান বাহিনী হামলা চালিয়েছে। এ ক্ষেত্রে বিপজ্জনক পরিস্থিতি এড়ানোর জন্য রাশিয়া-ইসরাইল যে চুক্তি রয়েছে তা পালন করা হয় নি। এর ফলে, সিরিয়ার বিমান বিধ্বংসী ব্যবস্থা থেকে ছোঁড়া ক্ষেপণাস্ত্রের আঘাতে রাশিয়ার একটি বিমান বিধ্বস্ত হয়েছে। এখন থেকে ইসরাইলকে এ ধরনের পরিস্থিতি এড়িয়ে চলার জন্য রুশ প্রেসিডেন্ট বলেছেন।”

টেলিফোন আলাপে ইসরাইলের প্রধানমন্ত্রী রুশ প্রেসিডেন্টের কাছে বিমান বিধ্বস্ত ও সেনা নিহতের ঘটনায় শোক প্রকাশ করেন। পাশাপাশি তিনি প্রতিশ্রুতি দিয়েছেন যে, সোমবার রাতের ঘটনার যথার্থ তদন্ত করে বিস্তারিত তথ্য মস্কোকে দেয়া হবে। বিষয়টি ইসরাইলি বিমানবাহিনীর প্রধান আলুফ আমিকাম নরকিন মস্কোকে জানাবেন।

সিরিয়ার ক্ষেপাস্ত্রে রুশ বিমান ভূপাতিত হওয়ার পর মস্কো বলেছে, রাশিয়ার বিমানকে ঢাল হিসেবে ব্যবহার করে ইসরাইলি এফ-১৬ বিমান সিরিয়ার ওপর হামলা চালিয়েছে। ইসরাইলি বিমানের বিরুদ্ধে সিরিয়ার সেনারা ক্ষেপণাস্ত্র ছুঁড়লে তা রুশ বিমানে লাগে।

**রাজনৈতিক, ধর্মবিদ্বেষী ও খারাপ কমেন্ট করা থেকে বিরত থাকুন।**

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here