আওয়ামী লীগ জনগণকে আগেই ত্যাগ করেছে মন্তব্য করে বিএনপির জ্যেষ্ঠ যুগ্ম মহাসচিব রুহুল কবির রিজভী বলেছেন, আওয়ামী লীগ জনগণকে চায় না। তারা জনগণকে বহু আগে ছেড়ে দিয়েছে। তাদের সাথে জনগণের জাতীয় ঐক্য হবে না। আর ঐক্যে আসতে হলে তাদেরকে সংশোধন হয়ে আসতে হবে।

রোববার দুপুরে নয়াপল্টনে দলীয় কার্যালয়ে সংবাদ সম্মেলনে তিনি এসব কথা বলেন।

বিএনপির সিনিয়র যুগ্ম-মহাসচিব রুহুল কবির রিজভী বলেছেন, মন্ত্রীরা না আইন মানে, না কানুন মানে। তারা মনে করেন দেশটা তাদের জমিদারি। এসময় তিনি প্রশ্ন রাখেন সরকারি গাড়ি ব্যবহার করে ক্ষমতাসীনরা কিভাবে নির্বাচনী প্রচার চালায়?

রিজভী বলেন, ‘মন্ত্রীরা মনে করেন সরকারি গাড়ি তাদের ব্যক্তিগত সম্পত্তি। তাদের জবাবদিহি করতে হয় না। দুদক ও আইন-শৃঙ্খলা বাহিনী তাদের করায়ত্বে, সুতরাং তারা ভয় পাবে কাকে? এ কারণে সরকারি গাড়ি নিয়ে ওবায়দুল কাদের সাহেব নির্বাচনী প্রচারণার গান গাইতে শুরু করেছেন। আপনাদেরতো নির্বাচনের দরকার হয় না, দরকার হলে সরকারি গাড়িতে চড়ে প্রচারণা চালাতেন না।

আওয়ামী লীগকে ছাড়া জাতীয় ঐক্য হয় না-ওবায়দুল কাদেরের এমন বক্তব্যের প্রতিক্রিয়ায় রিজভী বলেন, আওয়ামী লীগ জনগণকে চায় না। তারা জনগণকে বহু আগে ছেড়ে দিয়েছে। তাদের সঙ্গে জনগণের জাতীয় ঐক্য হবে না। আর ঐক্যে আসতে হলে তাদেরকে সংশোধন হয়ে আসতে হবে। জনগণের দাবিগুলো মানতো হবে।

২১ আগস্ট গ্রেনেড হামলা মামলার রায়ের বিষয়ে বিএনপি এ নেতা আরও বলেন, বিএনপিকে নিশ্চিহ্ন করার নানাবিধ ষড়যন্ত্রের ধারাবাহিকতায় ২১ আগস্ট গ্রেনেড হামলা মামলায় আদালতকে হাতিয়ার হিসেবে ব্যবহার করছে আওয়ামী লীগ। কারণ, আইন-আদালত এখন সরকারের হাতের মুঠোয়।

সংবাদ ব্রিফিংয়ে উপস্থিত ছিলেন বিএনপির ভাইস-চেয়ারম্যান আহমেদ আযম খান, চেয়ারপারসনের উপদেষ্টা আবুল খায়ের ভূঁইয়া, প্রশিক্ষণ সম্পাদক এবি এম মোশাররফ হোসেন, সহ-সাংগঠনিক সম্পাদক অ্যাডভোকেট আবদুস সালাম আজাদ প্রমুখ উপস্থিত ছিলেন।

**রাজনৈতিক, ধর্মবিদ্বেষী ও খারাপ কমেন্ট করা থেকে বিরত থাকুন।**

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here