মংলা ও বুড়িমারী বন্দরে সেবা দিতে সবক্ষেত্রে শতভাগ দুর্নীতি হয় বলে ট্রান্সপারেন্সি ইন্টারন্যাশনাল বাংলাদেশের (টিআইবি) এক গবেষণা প্রতিবেদনে দাবি করা হয়েছে।

রোববার (২৩ সেপ্টেম্বর) টিআইবির কার্যালয়ে ‘মংলা বন্দর ও কাস্টম হাউজ এবং বুড়িমারী স্থলবন্দর ও শুল্ক স্টেশন : আমদানি-রফতানি প্রক্রিয়ায় সুশাসনের চ্যালেঞ্জ ও উত্তরণের উপায়’ শীর্ষক গবেষণা প্রতিবেদন প্রকাশ অনুষ্ঠানে এ তথ্য জানানো হয়।

সম্মেলনে এ দুটি বন্দর ও কাস্টমসের বিষয়ে প্রতিষ্ঠানটির করা গবেষণা প্রতিবেদন তুলে ধরা হয়।

সংবাদ সম্মেলনে টিআইবির নির্বাহী পরিচালক ড. ইফতেখারুজ্জামান বলেন, এখানে দুর্নীতি দমন কমিশন দুদকের কার্যক্রম আরও জোরদার করা দরকার।

তিনি বলেন, ‘পৃথিবীর এমন কোনো দেশ নেই যেখানে দুর্নীতি বন্ধ হয়েছে কিন্তু দুর্নীতিবাজরা শাস্তি পায়নি। আমাদের দেশেও এমন নজির দরকার।’

টিআইবির গবেষণায় বলা হয়, এ দুটি বন্দরে পণ্য আমদানি-রফতানিতে সবগুলো ধাপেই  নিয়ম বহির্ভূতভাবে আর্থিক লেনদেন হয়। গত এক বছরে মোংলা কাস্টমসে এ লেনদেনের পরিমাণ ছিল প্রায় ১৫ কোটি ৬৯ লাখ টাকা। আর মোংলা বন্দরে লেনদেনের পরিমাণ ছিল ৪ কোটি ৬১ লাখ টাকা।

সংবাদ সম্মেলনে ড. ইফতেখারুজ্জামান বলেন, ‘দুর্নীতি কমবে না যদি রাজনৈতিকভাবে সিদ্ধান্ত না নেওয়া হয়।’

**রাজনৈতিক, ধর্মবিদ্বেষী ও খারাপ কমেন্ট করা থেকে বিরত থাকুন।**

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here