আঙুলের চোট নিয়ে এশিয়া কাপের মাঝপথেই দেশে ফিরেছিলেন। কথা ছিল অস্ত্রোপচারের জন্য কাল-পরশুর মধ্যে উড়ে যেতে পারেন নিউ ইয়র্কে। কিন্তু সাকিব আল হাসানের চোট এতোটাই খারাপ হয়ে গেল, শেষ পর্যন্ত দেশেই অস্ত্রোপচার করাতে হয়েছে তাঁকে। চোট পাওয়া হাতে সংক্রমণ ছড়িয়েছে বলেও সাকিব জানিয়েছেন দেশের একটি শীর্ষ পত্রিকাকে।

এই বছর ত্রিদেশীয় সিরিজ খেলার সময় যে চোট পেয়েছিলেন আঙুলে, সেটাই সাকিবকে তাড়া করে বেরিয়েছে অনেক দিন। নিদাহাস ট্রফিতে হুট করে খেলতে হয়েছিল, এরপর অবশ্য আবার মাঠে ফিরেছিলেন। কিন্তু অবস্থা খারাপ হওয়ায় ওয়েস্ট ইন্ডিজ সিরিজের শেষেই অস্ত্রোপচার করানোর সিদ্ধান্ত নিয়েছিলেন। শেষ পর্যন্ত পরে এশিয়া কাপের পরেই করানোর সিদ্ধান্ত নেন। কিন্তু অবস্থার অবনতি হওয়ায় পাকিস্তানের সঙ্গে ম্যাচের আগেই দেশে ফিরতে হয়েছে সাকিবকে।

এদিকে কাল দেশে ফিরে ডাক্তার দেখানোর পরেই জানা যায়, সাকিবের ব্যথা পাওয়া আঙুলে সংক্রমণ শুরু হয়ে গেছে। সঙ্গে সঙ্গে ভর্তি হতে হয় অ্যাপোলো হাসপাতালে, অবস্থা থেকে চিকিৎসকেরা তাঁকে সাথে সাথে অস্ত্রোপচারের সিদ্ধান্ত নেন।

সাকিব পরে দেশের একটি শীর্ষ দৈনিককে বলেছেন, আর একটি দেরি করলে আরও বড় ক্ষতি হতে পারত হাতের। সেই ক্ষতস্থান থেকে প্রায় ৬০-৭০ মিলিগ্রাম পুঁজ বের করা হয়েছে বলে জানা গেছে। আপাতত অ্যাপোলোতে পুঁজ বের করার পর অ্যান্টিবায়োটিক দেওয়া হয়েছে সাকিবকে।

ডাক্তাররা সেখানে বিস্ময় প্রকাশ করে বলেছেন, এই হাত নিয়ে তিনি কীভাবে এই কদিন খেলা চালিয়ে গেছেন, ৭২ ঘন্টা পর্যন্ত অ্যান্টবায়োটিক খেয়ে পর্যবেক্ষনে থাকতে হবে। সামনের তিন দিন সাকিবকে তাই দেশেই থাকতে হচ্ছে।

**রাজনৈতিক, ধর্মবিদ্বেষী ও খারাপ কমেন্ট করা থেকে বিরত থাকুন।**

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here