চ্যাম্পিয়নস লিগের নতুন মৌসুমে নিজেদের প্রথম ম্যাচে কয়েকদিন আগেই লাল কার্ড দেখেছিলেন। শাস্তি হিসেবে এক ম্যাচ নিষিদ্ধ হওয়ার শঙ্কায় রয়েছেন ক্রিশ্চিয়ানো রোনালদো। এরইমধ্যে জুভেন্টাসের তারকা এ ফরোয়ার্ডের বিপক্ষে ধর্ষণের অভিযোগ আনলেন যুক্তরাষ্ট্রের এক নারী। তিনি দাবী করেছেন, ২০০৯ সালে লাস ভেগাসের এক হোটেলে সিআর সেভেন তার সঙ্গে জড়িয়ে পড়েছিলেন। জার্মান ম্যাগাজিন স্পাইজেল খবরটি প্রকাশ করেছে।

এতদিন ধর্ষণের ব্যাপারটি মোটা অঙ্কের টাকা দিয়ে ঐ নারীর মুখ বন্ধ করে রেখেছিলেন রোনালদো। নয় বছর আগে আউট অফ দ্য কোর্ট সেই বোঝাপড়া নিয়েই এখন প্রশ্ন তুলে দিয়েছেন ধর্ষণের শিকার হওয়া সেই নারী। বিতর্কিত এই খবর প্রকাশের পর রোনালদোর আইনজীবী ঐ ম্যাগাজিনের (স্পাইজেল) বিরুদ্ধে আইনি পদক্ষেপ নেওয়া হুমকি দিয়েছেন।

এদিকে স্পাইজেল কতৃপক্ষ অবশ্য, সম্প্রতি ধর্ষণের খবর প্রকাশের অনেক আগে থেকে অভিযোগকারিণীর বয়ানের ভিত্তিতে রোনালদোর সঙ্গে যোগাযোগের চেষ্টা করেছেন তারা। কিন্তু তাদের সঙ্গে কোনভাবেই যোগাযোগ করেননি রোনালদো ও তার আইনজীবী। যে কারণে খবরটি প্রকাশে কোন সমস্যা মনে করেনি সংস্থাটি।

ব্যাপারটি নিয়ে এখনও কোন কিছুই বলেননি রোনালদো। তবে তার আইনজীবীর পক্ষ থেকে জানানো হয়েছে, দুজনের সম্মতিতে ঘটনাটি ঘটেছিল। তারপর দীর্ঘ সময় পর ঐ নারী শুধু সিআর সেভেনের সম্মানহানি করতেই হঠাৎ করে ধর্ষণের অভিযোগ তুলেছেন।

রোনালদোর বিপক্ষে তোলা ঐ নারীর অভিযোগ খুব গুরুত্বের সঙ্গেই দেখছেন আইনজীবীরা। তারা জানিয়েছেন, ব্যাপারটি আইনের মাধ্যমেই নিস্পত্তি হবে।

**রাজনৈতিক, ধর্মবিদ্বেষী ও খারাপ কমেন্ট করা থেকে বিরত থাকুন।**

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here