ইন্দোনেশিয়ার সুলাওয়েসি দ্বীপে সুনামির আঘাতে মৃতের সংখ্যা বেড়ে ৩৮৪ জনে দাঁড়িয়েছে। তবে এই সংখ্যা আরও বাড়তে পারে আশঙ্কা করছে দেশটির দুর্যোগ ব্যবস্থাপনা সংস্থা।

৭ দশমিক ৫ মাত্রার শক্তিশালী ভূমিকম্পের পর শুক্রবার (২৮ সেপ্টেম্বর) দ্বীপটির ওপর দিয়ে এই সুনামি ধেয়ে যায়।

বার্তা সংস্থা বিবিসির খবরে বলা হয়েছে, সুলাওয়েসির উপকূলীয় শহর পালুর ওপর ১০ ফুট উচ্চতার জলোচ্ছ্বাস আছড়ে পড়ে।

সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে ছড়িয়ে পড়া ছবি ও ভিডিওতে বেশ কিছু ভবন, ঘরবাড়ি ও একটি মসজিদ বিধ্বস্ত অবস্থায় পড়ে থাকতে দেখা যায়।

ইন্দোনেশিয়ার দুর্যোগ ব্যবস্থাপনা সংস্থা বলছে, ভূমিকম্পের পর থেকে এখন পর্যন্ত ৩৮৪ জনের মৃতদেহ উদ্ধার করা হয়েছে। তবে নিহতের সংখ্যা ক্রমেই বাড়ছে।

সংস্থার মুখপাত্র সুতোপো পারু নুগ্রুহ রয়টার্সকে বলেন, আক্রান্ত অঞ্চলের সঙ্গে যোগাযোগ বিচ্ছিন্ন হয়ে পড়ায় হতাহতের খবর জানা যাচ্ছেনা। সুনামির পর থেকে উপকূলে বহু মানুষের লাশ ভাসতে দেখা যাচ্ছে। তবে এখনো এর প্রকৃত সংখ্যা জানা সম্ভব হয়নি।

ভূমিকম্পের কারণে নাকি সুনামির আঘাতে এসব প্রাণহানির ঘটনা ঘটেছে, তা এখনও স্পষ্ট নয়।

উপকূলীয় ছোট্ট শহর পালুতে প্রায় ৩ লাখ মানুষের বাস। সেখানে উদ্ধার অভিযান শুরু হয়েছে জানিয়ে দেশটির এক মন্ত্রী বলেন, ভূমিকম্প ও সুনামিতে বিমানবন্দরের রানওয়েসহ শহরটি বিধ্বস্ত হয়ে গেছে। প্রায় সব ধরণের যোগাযোগ ব্যবস্থা ভেঙে পড়লেও হেলিকপ্টার অবতরণের সম্ভাবনা থাকায়, এর মাধ্যমেই তল্লাশি ও উদ্ধার কাজ চালানো হচ্ছে।

**রাজনৈতিক, ধর্মবিদ্বেষী ও খারাপ কমেন্ট করা থেকে বিরত থাকুন।**

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here