পাঁচ কোটি ফেসবুক ব্যবহারকারীর তথ্য চলে গেছে হ্যাকারদের হাতে। দু’দিন আগেই এমন খবরে তোলপাড় হয় গোটা বিশ্ব। তবে সেই তালিকায় শুধু আপনার আমার মত সাধারণ মানুষই নেই, রয়েছেন খোদ ফেসবুক কর্তা মার্ক জুকারবার্গও। বাদ যাননি ফেসবুকের চিফ অপারেটিং অফিসার শেরিল স্যান্ডবার্গের অ্যাকাউন্টও।

ফেসবুকের এক মুখপাত্র জানিয়েছেন, হ্যাকাররা ডিজিটাল টোকেন চুরি করে নিয়েছে। যার মাধ্যমে পাঁচ কোটি ব্যবহারকারীর তথ্য বেহাত হয়েছে, যা ফেসবুকের সবচেয়ে বাজে নিরাপত্তা লঙ্ঘনের ঘটনা।

তবে অ্যাকাউন্টের কোনও তথ্য নিয়ে অপব্যবহার করা হয়েছে, নাকি ব্যক্তিগত তথ্য চুরি করেছে, তা এখনও স্পষ্ট নয়। তবে ফেসবুকের প্রাথমিক তদন্তে জানা গেছে, এটি বড় ধরনের আক্রমণ।

চলতি বছরের শুরুতে ৮ কোটি ৭০ লাখ ব্যবহারকারীর তথ্য ফেসবুক থেকে হাতিয়ে তা রাজনৈতিক কাজে লাগানোর অভিযোগ ওঠে কেমব্রিজ অ্যানালিটিকার বিরুদ্ধে। বিশ্বজুড়ে এ নিয়ে ব্যাপক সমালোচনার মুখে পড়তে হয় ফেসবুককে। এবার ফের বড়সড় অভিযোগে বিপর্যস্ত হল ফেসবুক।

ফেসবুক বলছে, তারা ত্রুটি শনাক্ত করার পরপর গত বৃহস্পতিবারেই তা বন্ধ করে দেয়। তারা যুক্তরাষ্ট্রের ফেডারেল ব্যুরো অব ইনভেস্টিগেশন বিভাগ, হোমল্যান্ড সিকিউরিটি ও কংগ্রেস, আয়ারল্যান্ডের ডেটা প্রোটেকশন কমিশনকে বিষয়টি অবহিত করে। ফেসবুকের তরফে জানানো হয়েছে, আপনার অ্যাকাউন্ট যদি হ্যাক হয়ে থাকে, তাহলে সেটা আপনাকে নোটিফিকেশন দিয়ে জানানো হবে। নিউজ ফিডের উপরের দিকেই আসবে সেই নোটিফিকেশন।

**রাজনৈতিক, ধর্মবিদ্বেষী ও খারাপ কমেন্ট করা থেকে বিরত থাকুন।**

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here