তনুশ্রী দত্তের অভিযোগ নিয়ে নানা পটেকরের বিরুদ্ধে বলিউডে তোলপাড় চলছে। আর বিতর্ক যেখানে, সেখানে রাখি সাওয়ান্ত থাকবেন না তা কি হয়? শনিবার এই ঘটনা নিয়েই সাংবাদিক বৈঠক করলেন রাখি। সেখানেই বোমা ফাটালেন রাখি। তার বাক্যবাণের নিশানা হলেন তনুশ্রী দত্ত। নানার বিরুদ্ধে অভিযোগ নাকি মিথ্যে, তেমনই দাবি রাখির। ‘হর্ন ওকে প্লিজ’ (২০০৯) ছবিতে যে গানটি নিয়ে এত বিতর্ক সেই গানে পরে তনুশ্রীর বদলে রাখিই নাচেন।

সংবাদমাধ্যমের কাছে রাখির দাবি, শ্যুটিংয়ের সময়ে তনুশ্রী নিজের মেকআপ ভ্যানে গিয়ে ড্রাগ নিচ্ছিলেন। তার পরে আর ভ্যানের দরজা খোলেননি। রাখির কথায়, ওই সব ‘মি-টু’ আন্দোলন বাদ দিন। আমি এর অংশ হতে চাই না। ‘নাথানি উতারো’ গানটির জন্য  হঠাৎ গণেশ আচার্য আমায় ফোন করে ছবির সেটে ডাকেন। আমি তখন বাড়িতে। নানা পটেকরও ফোন করে ডাকেন। আমি জানতাম না তখন কী হয়েছে। আমি সেটে গিয়ে জানতে পারি গানটির কিছু অংশের শ্যুটিং হয়ে গিয়েছে। তার পরেই তনুশ্রী প্রায় ৪-৫ ঘণ্টা ধরে নিজেকে ভ্যানিটি ভ্যানে আটকে রেখেছেন।

রাখি জানিয়েছেন, তনুশ্রীর হেয়ার অ্যান্ড মেক আপ আর্টিস্টকে তিনিও চিনতেন। তাকে জিজ্ঞাসা করেই রাখি জানতে পারেন, তনুশ্রী ভ্যানের মধ্যে ড্রাগ নিয়ে অজ্ঞান হয়ে গিয়েছিলেন।

রাখির দাবি, এই ঘটনার পরেই তাকে ওই আইটেম সং-এ নাচার জন্য অনুরোধ করেছিলেন গণেশ ও নানা।

**রাজনৈতিক, ধর্মবিদ্বেষী ও খারাপ কমেন্ট করা থেকে বিরত থাকুন।**

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here