ক্রিস্টিয়ানো রোনালদো তার বিরুদ্ধে ওঠা যুক্তরাষ্ট্রের এক নারীকে ধর্ষণের অভিযোগকে ‘ভুয়া’ বলে উড়িয়ে দিয়েছেন। ওই নারীর অভিযোগ, ২০০৯ সালে পর্তুগিজ তারকা তাকে ধর্ষণ করেছিলেন।

সামাজিক যোগাযোগমাধ্যম ইন্সটাগ্রামে এক ভিডিওতে রোনালদো বলেন, তারা আমার নাম ব্যবহার করে নিজেদেরকে প্রচার করতে চায়। এটা স্বাভাবিক। এই অভিযোগের খবর ছাপানো জার্মান সাময়িকী ডের স্পিগেলের বিরুদ্ধে আইনগত ব্যবস্থা নেয়ার হুমকি দিয়েছেন রোনালদোর আইনজীবীরা।

সাময়িকীটি লিখে, ক্যাথরিন মায়োরগা নামের অভিযোগকারী দাবি করেছেন, লাস ভেগাসে একটি হোটেল কক্ষে রোনালদো তাকে ধর্ষণ করেছিল। এ ঘটনার পর অল্প সময়ের মধ্যেই লাস ভেগাসের পুলিশকে তিনি জানান।

প্রতিবেদনটিতে আরো বলা হয়, ২০১০ সালে আদালতের বাইরে রোনালদোর সঙ্গে আলোচনার মাধ্যমে একটি সমঝোতায় পৌঁছান মায়োরগা। তিন লাখ ৭৫ হাজার ডলারের বিনিময়ে কখনও এই অভিযোগ প্রকাশ না করার ব্যাপারে রাজি হন তিনি। মায়োরগার আইনজীবীরা এখন ঘটনাটি জনসম্মুখে না আনার চুক্তি বাতিল ঘোষণা করতে করতে চাইছে। এক বিবৃতিতে রোনালদোর আইনজীবী জানান, স্পিগেলের প্রতিবেদন পুরোপুরি বেআইনি।

**রাজনৈতিক, ধর্মবিদ্বেষী ও খারাপ কমেন্ট করা থেকে বিরত থাকুন।**

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here