সৌদি আরবের ভিন্ন মতাবলম্বী সাংবাদিক জামাল খাশোগির গুম হয়ে যাওয়ার ঘটনায় সৌদি যুবরাজ মোহম্মাদ বিন সালমানের সঙ্গে কথা বলেছেন শীর্ষস্থানীয় মার্কিন কর্মকর্তারা। বিন সালমানের সঙ্গে প্রাথমিকভাবে টেলিফোনে কথা বলেছেন আমেরিকার জাতীয় নিরাপত্তা উপদেষ্টা জন বোল্টন ও প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্পের জামাতা জ্যারেড কুশনার।

পরবর্তীতে মার্কিন পররাষ্ট্রমন্ত্রী মাইক পম্পেও সৌদি রাজা সালমানের সঙ্গেও বিষয়টি নিয়ে টেলিফোনে কথা বলেন।

হোয়াইট হাউজ জানিয়েছে, দু’টি সংলাপেই খাশোগির গুম হয়ে যাওয়ার ব্যাপারে বিস্তারিত ব্যাখ্যা চাওয়া হয়েছে এবং সৌদি সরকারকে এ ঘটনার তদন্তে স্বচ্ছতা নিশ্চিত করতে বলা হয়েছে।  হোয়াইট হাউজের মুখপাত্র সারা স্যান্ডার্স বলেছেন, নিখোঁজ সাংবাদিকের ভাগ্যে কি ঘটে তা দেখার জন্য ওয়াশিংটন নিবিড় দৃষ্টি রেখেছে।

গত সপ্তাহের শেষদিকে স্বেচ্ছা নির্বাসনে থাকা জামাল খাশোগি তুরস্কের ইস্তাম্বুলস্থ সৌদি কনস্যুলেটে প্রবেশ করার পর থেকে নিখোঁজ রয়েছেন। তুর্কি কর্মকর্তা বলছেন, খাশোগিকে সৌদি কনস্যুলেটের মধ্যে হত্যা করা হয়েছে; যদিও সৌদি আরব এ অভিযোগ অস্বীকার করছে।

তুর্কি দৈনিক সাবাহ একদল সৌদি নিরাপত্তা কর্মকর্তার ছবি প্রকাশ করে বলেছে, গত ২ অক্টোবর যেদিন খাশোগি সৌদি কনস্যুলেটে প্রবেশ করেন সেদিন দু’টি ব্যক্তিগত বিমানে করে ইস্তাম্বুলে যান এসব কর্মকর্তা। তারা সৌদি কনস্যুলেটেও প্রবেশ করেন।

খাশোগির রহস্যজনক নিখোঁজ হয়ে যাওয়ার প্রতিবাদে আমেরিকার একদল নাগরিক ওয়াশিংটন ডিসিতে সৌদি দূতাবাসের সামনে বিক্ষোভ দেখিয়েছেন। মার্কিন সিনেটের পররাষ্ট্রনীতি বিষয়ক কমিটির ২২ সদস্য এ বিষয়ে তদন্ত চালানোর জন্য প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্পের প্রতি আহ্বান জানিয়েছেন।

**রাজনৈতিক, ধর্মবিদ্বেষী ও খারাপ কমেন্ট করা থেকে বিরত থাকুন।**

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here