ডাম্বুলায় দ্বিতীয় ওয়ানডেতে আবারও বৃষ্টি, কিন্তু এবার নিষ্পত্তি হলো লড়াইয়ের। শ্রীলঙ্কাকে বৃষ্টি আইনে শনিবার ৩১ রানে হারিয়ে পাঁচ ম্যাচের সিরিজে ১-০ ব্যবধানে এগিয়ে গেল ইংল্যান্ড।

গত বুধবার ইংল্যান্ডের ইনিংস চলার মধ্যেই ভারী বর্ষণ ও ভেজা আউটফিল্ডে ম্যাচ পরিত্যক্ত হয়। দ্বিতীয় ম্যাচেও বৃষ্টি যখন এলো, তখন ২৭৯ রানের লক্ষ্যে নেমে ধুঁকছিল শ্রীলঙ্কা। ২৯ ওভার শেষে ৫ উইকেটে ১৪০ রান করলে বৃষ্টি নামে। ঘণ্টাখানেক অপেক্ষার পর আবহাওয়া অনুকূলে না এলে ডাকওয়ার্থ লুইস পদ্ধতির হিসাব নিকাশে দেখা যায় ৭১ রানে পিছিয়ে ছিল স্বাগতিকরা। ম্যাচে বিজয়ী ঘোষণা করা হয় ইংল্যান্ডকে।

শনিবার রানগিরি ডাম্বুলা আন্তর্জাতিক স্টেডিয়ামে টস জিতে শ্রীলঙ্কার বোলিং নেয়াকে সঠিক প্রমাণ করেন মালিঙ্কা। ডানহাতি এ পেসার ইনিংস শুরুর চতুর্থ বলেই জেসন রয়কে ধনাঞ্জয়ার ক্যাচে ফেরান। দ্বিতীয় উইকেটে অবশ্য জনি বেয়ার স্টো (২৬) ও জো রুট (৭১) হাল ধরেন সফরকারীদের। ৭৪ বলে তারা গড়েন ৭২ রানের জুটি। তাতে বড় স্কোরের স্বপ্ন দেখে ইয়ন মরগানের দল। ঠিক সে সময় বেয়ার স্টোকে বোল্ড করেন থিসারা পেরেরা। তবে মরগানকে সঙ্গী করে রুট চলছিলেন তার মত করেই। ঠিক তখনই দানবীয় রুপ ধারণ করেন মালিঙ্গা। ২৯তম ওভারের শেষ বলে ধনাঞ্জয়ার ক্যাচে সফরকারী দলের টেস্ট অধিনায়ককে সাজঘরের পথ দেখান এ ডানহাতি।

রুট ফিরলেও দুর্দান্ত খেলছিলেন মরগান। এগিয়ে যাচ্ছিলেন সেঞ্চুরির দিকে। ঠিক সে সময় ইংল্যান্ড অধিনায়ককে থামান মালিঙ্গা। ৪২তম ওভারের চতুর্থ বলে এ ডানহাতি নিজের বলে নিজেই ক্যাচে ফেরান মরগানকে। ফিরে যাওয়ার আগে এ বাঁহাতি করেন ৯১ বওেল ১১ চার ও ২ ছয়ে ৯২ রান।

শেষ দিকে মইন আলি (০), ক্রিস ওকস (৫) ও লিয়াম ডাওসনকে (৪) ফিরিয়ে লক্ষ্যটাকে নাগালের মধ্যেই রাখতে চেষ্টা করেন মালিঙ্গা। শেষ পর্যন্ত এ ডানহাতি ১০ ওভারে ৪৪ রানে নেন ৫ উইকেট।

২৭৯ রানের লক্ষ্যে ব্যাট করতে নেমে শুরুতেই ক্রিস ওকস তোপের মুখে পড়ে শ্রীলঙ্কা। ৩১ রানের মধ্যেই স্বাগতিকরা হারিয়ে বসে টপ অর্ডারের ৪ ব্যাটসম্যানকে (উপুল থারাঙ্গা ০, নিরোশান ডিকভেলা ৯, দিনেশ চান্দিমাল ৬ ও শানাকা ৮)। এরমধ্যে ২ উইকেটই পকেটে পুরেন ওকস।

৫ম উইকেটে কুশল পেরেরা (৩০) ও ধনাঞ্জয়া ডি সিলভা (৩৬) চেষ্টা করেছিলেন লঙ্কার হাল ধরতে। কিন্তু দলীয় রান ৭৪-এ পৌঁছাতেই পেরেরাকে জেমন রয়ের ক্যাচে পরিণত করেন লিয়াম ডাওসেন। এরপর অবশ্য অতিথি বোলারদের বিপক্ষে প্রতিরোধ গড়েছিলেন থিসারা পেরেরা (৪৪)। তাকে যোগ্য সঙ্গ দিয়ে যাচ্ছিলেন ধনাঞ্জয়া। কিন্তু ২৯তম ওভারের শেস বলের পরই ডাম্বুলার আকাশে শুরু হয় মুষুলধারে বৃষ্টি। শেষ পর্যন্ত তার প্রভাবে আর খেলা হয়নি। যে কারণে ডাক ওয়ার্থ লুইস পদ্ধতিতে ৩১ রানের হার মানতে হয়েছে শ্রীলঙ্কার।

৫ ওভারে ২৬ রানে ৩ উইকেট নিয়ে ইংল্যান্ডের সেরা বোলার ওকস। ওলি স্টোন ও ডসন নেন ১টি উইকেট। অসাধারণ ব্যাটিংয়ের জন্য ম্যাচ সেরা হয়েছেন ইয়ন মরগান।

**রাজনৈতিক, ধর্মবিদ্বেষী ও খারাপ কমেন্ট করা থেকে বিরত থাকুন।**

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here