বলিউড অভিনেত্রী আলিয়া ভাট। তার অভিনয় কৌশল অনেককেই চমকে দিয়েছে। এতো অল্প বয়েসে এমন পরিপক্ক অভিনয় আলিয়ার ক্ষেত্রেই মানায়। সম্প্রতি তিনি একটি খোলা চিঠি লিখেছেন। যেখানে প্রকাশ পেয়েছে নায়িকার আবেগপ্রবণ কথা। ‘ওয়ার্ল্ড মেনটাল হেল্থ ডে’-তে আলিয়ার বোন শাহিন ভাটের প্রথম উপন্যাস প্রকাশিত হয়েছে। ‘নেভার বিন (আন) হ্যাপিয়ার’ বইতে শাহিন লিখেছেন নিজের অবসাদগ্রস্ততার কথা। বোনের সেই বই পড়ে একটি খোলা চিঠি লিখেছেন আলিয়া। যা ভিডিও আকারে প্রকাশ পেয়েছে। আবেগঘন সেই ভিডিও ভাইরাল হয়েছে সোশ্যাল মিডিয়ায়।

ভিডিওটিতে দেখা গেছে, ছোটবেলায় বোন আলিয়ার সঙ্গে নাচ করছেন শাহিন। অসম্ভব হাসিখুশি দেখাচ্ছে তাকে। এর পর আলিয়া বলেন, শাহিনের মুখ থেকে এক সময় সেই হাসি মিলিয়ে গিয়েছিল। সম্পূর্ণ ভাবে হয়তো তিনি বোনের পাশে থাকতে পারেননি। সেই জন্য ক্ষমাও চাইলেন। বললেন, প্রত্যেকেই শাহিনকে অসম্ভব ভালোবাসেন।

আলিয়া আরও বলেন, ‌শাহিনের এই বইটি নিয়ে রীতিমতো গর্ব হচ্ছে তার। এই চিঠি লিখতে আলিয়াকে রীতিমতো ‘স্ট্রাগল’ করতে হয়েছে বলে উল্লেখ করেন তিনি। কারণ ২৫ বছর এক সঙ্গে থাকার পরেও শাহিনের কিছু সময় নীরব হয়ে থাকার মানে বুঝতে পারেননি আলিয়া।

বাড়ির সবাই মিলে যখন বাইরে কোথাও খেতে যাওয়া হত, শাহিন একা থাকতে চাইলে আলিয়া ভাবতেন, বাড়িতেই হয়তো টিভি দেখতে ভালোবাসেন শাহিন। বোনের বই পড়েই ‘বেসিক হিউম্যান লেভেল’টা আসলে বুঝতে পেরেছেন ‘ব্রহ্মাস্ত্র’ নায়িকা। জীবন নিয়ে অনেকটা অন্যরকম বোধ তৈরি হয়েছে তার।

‘ভোগ’ পত্রিকায় প্রথম শাহিন ভাট তার জীবনের অবসাদগ্রস্ততার দিনগুলোর কথা শেয়ার করেছিলেন। তা নিয়ে টুইটার পোস্টও করেছিলেন আলিয়া।

**রাজনৈতিক, ধর্মবিদ্বেষী ও খারাপ কমেন্ট করা থেকে বিরত থাকুন।**

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here