অস্ট্রেলিয়াকে  দুই দিনে করতে হবে ৫৩৮ রান। প্রায় অসম্ভব একটি টার্গেটকে সামনে রেখে নেমেই যেন খেই হারানো অজিরা কুল-কিনারা খুঁজে পাচ্ছিল না। পাকিস্তানের বোলিং দাপটের কাছে যেন অসহায়ত্ব বরণ করে নিলো হলুদরা। বোলারদের সামনে নিজেদের টিকিয়ে রাখার লড়াইটাও করতে পারলো না অস্ট্রেলিয়া।

আবুধাবীর পিচে যেন আগুন ধরালেন একাই আব্বাস। হামজার একটি উইকেট ছাড়া টপ অর্ডারের ব্যাটসম্যানরা প্যাভিলিয়নের পথ ধরেছেন আব্বাসের বলেই। শন মার্শ ছাড়া ফিঞ্চ, টিম হেড, মিচেল মার্শ ও ল্যাবুসচাগনে সাজঘরে ফিরেছেন এই গতির বোলারের কাছে ধরাশায়ী হয়ে।

আর পাকিস্তান টেস্ট ম্যাচ জিতে নিয়েছে চারদিনেই। লাঞ্চের বিরতির পর নেমেই ১৬৪ রানে গুটিয়ে গেলো অজিরা। পাকিস্তান ম্যাচ জিতে নিলো ৩৭৩ রানের বিশাল ব্যবধানে। আর দেড় দিন বাকী ছিল হাতে। সঙ্গে তিন টেস্ট ম্যাচ সিরিজ ২-০ ব্যবধানে জিতে নিলো পাকিস্তান।

যেটুকু প্রতিরোধ করেছেন ফিঞ্চ (৩১), হেড (৩৬), লেবুসচাগনে (৪৩) ও তথাকথিত বোলার স্টার্ক (২৮)। আব্বাস একাই নিয়েছেন ৫ উইকেট। ইয়াসির শাহ নিয়েছেন ৩ উইকেট ও মির হামজা একটি।

এর আগে ম্যাচের প্রথম ইনিংসে ব্যাটিংয়ে নেমে ২৮২ রানে গুটিয়ে যায় পাকিস্তান। নিজেদের প্রথম ইনিংসে অজিরাও ছোট সংগ্রহ করে। ১৪৫ রানে অল আউট হয়ে যায় হলুদরাও। পাকিস্তান নিজেদের দ্বিতীয় ইনিংসে ৪ শ‘ রানের মাথায় ইনিংস ঘোষণা করে। অজিদের সামনে টার্গেট দাঁড়ায় ৫৩৮। দুই দিনে প্রায় অসম্ভব টার্গেট ব্যাটে নেমেই চতুর্থদিনের লাঞ্চের বিরতির পরপরই অলআউট হয়ে যায় অজিরা।

দুই ইনিংস মিলিয়ে মোহাম্মদ আব্বাস একাই নেন ১০ উইকেট।

**রাজনৈতিক, ধর্মবিদ্বেষী ও খারাপ কমেন্ট করা থেকে বিরত থাকুন।**

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here