পাকিস্তানের অর্থনৈতিক উন্নয়নের জন্য দেশটির প্রতি সমর্থন অব্যাহত রাখার প্রতিশ্রুতি দিয়েছে চীন। পাক প্রধানমন্ত্রী ইমরান খান আজ (শুক্রবার) চীন সফরে পৌঁছে প্রেসিডেন্ট শি জিনপিংয়ের সঙ্গে বৈঠকে বসলে এই প্রতিশ্রুতি দেয়া হয়।

বৈঠকে ইমরান খান পাকিস্তানের অর্থনৈতিক অবস্থাকে “খুবই জটিল” বলে মন্তব্য করেন। চার দিনের সরকারি সফরে তিনি আজই বেইজিং পৌঁছান এবং চীনের গ্রেটহলে প্রেসিডেন্ট শি জিনপিংয়ের সঙ্গে বৈঠকে বসেন। ইমরান খান বলেন, ‘তিনি শিখতে এসেছেন’।

পাক প্রধানমন্ত্রী বলেন, তার সরকার গত আগস্ট মাসে ক্ষমতায় আসার পর অর্থনীতির খুব একটা কঠিন অবস্থা পেয়েছে। তিনি প্রেসিডেন্ট শি জিনপিংকে বলেন, “বিশ্বের বিভিন্ন দেশ একটি আবর্তের ভেতর দিয়ে চলে। তাদের উচ্চ পয়েন্ট ও নিম্ন পয়েন্ট থাকে। কিন্তু আমাদের দেশ এই মুহূর্তে খুবই বড় দুটি ঘাটতির ভেতর দিয়ে যাচ্ছে। একটি হলো বাজেট ঘাটতি এবং অন্যটি হলো চলতি হিসাবের ঘাটতি। এজন্যই বলেছি যে, আমরা শিখতে এসেছি।”

বৈঠকে প্রেসিডেন্ট শি জিনপিং বলেন, চীন ও পাকিস্তান সর্বাবস্থায় বন্ধু ছিল তবে সাংবাদিকদের সামনে তিনি কোনো আর্থিক সহায়তার কথা ঘোষণা করেন নি।

শি বলেন, “আমি পাক-চীন সম্পর্ককে খুবই গুরুত্ব দিয়ে থাকি এবং প্রধানমন্ত্রী ইমরান খানের সঙ্গে কাজ করে দু দেশের সর্বাত্মক কৌশলগত অংশীদারিত্বকে আরো শক্তিশালী করতে আগ্রহী যাতে পাকিস্তান ও চীনের গন্তব্যের নতুন অধ্যায় শুরু হয়।

**রাজনৈতিক, ধর্মবিদ্বেষী ও খারাপ কমেন্ট করা থেকে বিরত থাকুন।**

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here