তফসিল ঘোষণার পর আইনশৃঙ্খলা বাহিনী নির্বাচন কমিশনারের অধীনে চলে যাবে বলে জানিয়েছেন স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী আসাদুজ্জামান খাঁন কামাল।

এছাড়া নির্বাচন কেন্দ্রিক যে কোনো বিশৃঙ্খলা ও সহিংসতা কঠোর হাতে মোকাবিলা করা হবে বলেও জানান তিনি।

শনিবার জেল হত্যা দিবস উপলক্ষে ঢাকার কেন্দ্রীয় কারাগারের পুরাতন ভবন পরিদর্শন শেষে সাংবাদিকদের একথা জানান মন্ত্রী।

স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী বলেন, ‘নির্বাচন কমিশনের অধীনে আইন-শৃঙ্খলারক্ষাকারী বাহিনী থাকবে। তবে নির্বাচনকেন্দ্রিক যদি কেউ সহিংসতা করার পরিকল্পনা কারে তবে তা কঠোর হস্তে মোকাবিলা করা হবে। আমাদের পুলিশ বাহিনী এখন আগের চেয়ে অনেক সক্ষম। যে কোনো চ্যালেঞ্জ মোকাবেলা করতে পারবে তারা।’

সারাদেশের মানুষ গভীরভাবে জাতীয় চার নেতাকে স্মরণ করছে মন্তব্য করে মন্ত্রী বলেন, ‘অথচ যাদের হত্যা করে বাঙালী জাতিকে থামিয়ে দিতে চেয়েছিল ষড়যন্ত্রকারীরা।’

জাতীয় চার নেতার একজন সৈয়দ নজরুল ইসলামের ছেলে মেজর জেনারেল অবসরপ্রাপ্ত সৈয়দ সাফাউল ইসলাম বলেন, ‘পর্দার অন্তরালের মুখোশ গুলো আমরা দেখতে চাই। তারা কারা ছিল যারা দেশের সঙ্গে বেঈমানি করেছে।’ এই নৃশংস হত্যাকাণ্ডে যাদের শাস্তি এখনও হয়নি তাদের দেশে ফিরিয়ে এনে শাস্তি দেয়ার দাবি জানান তিনি। বলেণ, ‘বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানকে সপরিবারে হত্যা করার সাথে এই হত্যার সম্পর্ক রয়েছে।’

পরিদর্শনের সময় ঢাকা কেন্দ্রীয় কারাগারে জাতীয় চার নেতার প্রতিকৃতিতে ফুল দিয়ে শ্রদ্ধা জানান স্বরাষ্ট্রমন্ত্রীসহ জাতীয় নেতাদের স্বজনরা।

এসময় উপস্থিত ছিলেন সাবেক স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী সাহারা খাতুর, কৃষিমন্ত্রী মতিয়া চৌধুরীসহ মন্ত্রিপরিষদের সদস্য, জেল কর্তৃপক্ষসহ অন্যরা।

**রাজনৈতিক, ধর্মবিদ্বেষী ও খারাপ কমেন্ট করা থেকে বিরত থাকুন।**

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here