সুশান্ত সিং রাজপুত ও সারা আলী খান অভিনীত সিনেমা কেদারনাথ। শুরু থেকে নানা জটিলতার সম্মুখীন হয়েছে সিনেমাটি। এবার নতুন করে জটিলতায় পড়েছে এটি।

সিনেমাটির বিরুদ্ধে ধর্মীয় অনুভূতিতে আঘাতের অভিযোগ তুলেছে ভারতের উত্তরখন্ডের কেদারনাথের পুরোহিতদের একটি সংগঠন। এছাড়া সিনেমাটি নিষিদ্ধের দাবি করেছেন তারা। ভারতীয় একটি সংবাদমাধ্যম এ তথ্য জানিয়েছে।

‘কেদার সভা’ নামের সংগঠনটির চেয়ারম্যান বিনোদ শুক্লা সংবাদমাধ্যমে বলেন, “লাভ জিহাদ’ প্রচার করে সিনেমাটি হিন্দু ধর্মাবলম্বীদের অনুভূতিতে আঘাত করছে, এটি নিষিদ্ধ না করলে আমরা আন্দোলন শুরু করব।” তিনি আরো জানান, কেদারনাথে সিনেমাটির ‘অশ্লীল নাচের’ দৃশ্যায়নের সময় পুরোহিতরা তার প্রতিবাদও করেছিলেন।

এদিকে অজয়েন্দ্র অজয় নামের এক বিজেপি (ভারতীয় জনতা পার্টি) কর্মী সিনেমাটির জুটির মধ্যে প্রেম ও সাহসী দৃশ্য নিয়ে অভিযোগ করেছেন। পাশাপাশি সারাকে সুশান্ত পিঠে বহন করে নিচ্ছে সিনেমাটির এমন একটি পোস্টারে  নিয়েও তার আপত্তি রয়েছে। এ প্রসঙ্গে তিনি সংবাদমাধ্যমটিতে বলেন, ‘এটি সঠিক নয়, আপনি কোনো মুসলিমকে দেখবেন না যিনি কেদারনাথ মন্দিরে তীর্থযাত্রীদের পিঠে বহন করছেন।’

এছাড়া সিনেমায় উল্লেখিত ‘ভালোবাসা একটি তীর্থযাত্রা’ কথাটি নিয়েও আপত্তি তুলেছেন অজয়েন্দ্র অজয়। তিনি ভারতীয় সেন্সর বোর্ডের প্রধান প্রসূন জোশিকে সিনেমাটি নিষিদ্ধ করার অনুরোধ জানিয়েছেন।

কেদারনাথ সিনেমাটি পরিচালনা করেছেন অভিষেক কাপুর। সম্প্রতি প্রকাশিত হয়েছে এর টিজার। সিনেমাটির প্রেক্ষাপট ২০১৩ সালে কেদারনাথে হওয়া ভয়াবহ বন্যা। সিনেমার গল্পে দেখা যাবে, মুকু কেদারনাথ মন্দির দর্শন করতে আসে। মনসুর ধর্মীয় ও সামাজিক ভেদাভেদ ভুলে পিঠাওয়ের কাজ করে। মুকু ও মনসুর পরস্পরের প্রেমে পড়ে এবং তাদের লড়াই চালিয়ে যায়। আগামী ৭ ডিসেম্বর মুক্তি পাচ্ছে কেদারনাথ সিনেমাটি।

**রাজনৈতিক, ধর্মবিদ্বেষী ও খারাপ কমেন্ট করা থেকে বিরত থাকুন।**

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here