অন্তর্বর্তীকালীন কোচ সান্তিয়াগো সোলারির অধীনে জয়ের হ্যাটট্রিক করেছে রিয়াল মাদ্রিদ। চ্যাম্পিয়নস লিগে করিম বেনজেমার জোড়া গোলে ভিক্টোরিয়া প্লজেনকে ৫-০ ব্যবধানে উড়িয়ে দিয়েছে ‘লস ব্ল্যাঙ্কোস’রা।

হুলেন লোপেতেগুই বরখাস্ত হওয়ার পর রিয়ালের দায়িত্ব পাওয়া সোলারি জিতলেন প্রথম তিন ম্যাচেই। তিনটিই আবার তিনটি ভিন্ন প্রতিযোগিতায়। প্রথমটা ছিল কোপা দেল রেতে, দ্বিতীয়টা লা লিগায়।

আর এই তিন ম্যাচে রিয়াল মাদ্রিদের খেলোয়াড়রা গোল করেছে মোট ১১টি। পক্ষান্তরে নিজেরা খায়নি একটি গোলও।

প্রতিপক্ষের মাঠে বুধবার ম্যাচের ২০ মিনিটে রিয়ালকে এগিয়ে দেন বেনজেমা। রিয়ালের হয়ে এটি তার ২০০তম গোল। সপ্তম খেলোয়াড় হিসেবে রিয়ালের জার্সিতে ২০০ গোল করলেন ফরাসি এই স্ট্রাইকার।

২০তম মিনিটের সুযোগ কাজে লাগিয়ে এগিয়ে যায় রিয়াল। টনি ক্রুসের লম্বা করে বাড়ানো নিয়ন্ত্রণে নিয়ে বাঁ দিক দিয়ে আক্রমণে ওঠা বেনজেমা একাধিক ডিফেন্ডারকে কাটিয়ে ডান পায়ের শটে লক্ষ্য ভেদ করে আনন্দে মাতেন। দুই মিনিট পরই ব্যবধান দ্বিগুন করেন কাসেমিরো। টনি ক্রুসের কর্ণার থেকে হেডে গোল করেন তিনি।

এদিকে ম্যাচের ৩৭তম মিনিটে লুকাস ভাসকেসের বাড়ানো বলে গ্যারেথ বেল হেড দেওয়ার পর গোলমুখ থেকে বেনজেমাও হেডেই জাল খুঁজে নেন। ৪০তম মিনিটে দানি সেবাইয়োসের কাট ব্যাকে বেনজেমা মাথা ছোঁয়ানোর পর দূরের পোস্টে থাকা ওয়েলসের ফরোয়ার্ড বেল ভলিতে ব্যবধান আরও বাড়ান।

বিরতির পর আবারও গোলের জন্য মরিয়া হয়ে ওঠে রিয়াল। দলটির সেই চাহিদা এবার মেটান টনি ক্রুস। ৬৭তম মিনিটে দারুণ চিপে গোলরক্ষকের মাথার ওপর দিয়ে বল জালে জড়িয়ে স্কোরলাইন ৫-০ করেন তিনি। এরপর আর কোন দল গোলের দেখা না পেলে বড় জয় নিয়ে মাঠ ছাড়ে মাদ্রিদের অন্যতম সফল এ ক্লাবটি।

এ জয়ে চ্যাম্পিয়ন্স লিগের ‘জি’ গ্রুপে ৯ পয়েন্ট নিয়ে শীর্ষে রিয়াল। এএস রোমার পয়েন্টও রিয়ালের সমান; তবে মুখোমুখি লড়াইয়ে পিছিয়ে দ্বিতীয় স্থানে রয়েছে ইতালির ক্লাবটি। সিএসকে মস্কো ৪ পয়েন্ট নিয়ে তৃতীয় স্থানে।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here