নির্বাচন কমিশন সচিব হেলালুদ্দীন আহমদ জানিয়েছেন, ‘নির্বাচন কমিশনে (ইসি) নিবন্ধন নেই এমন দলের সদস্যরা যেকোনো নিবন্ধিত দলের প্রার্থী হতে পারবেন। এক্ষেত্রে ডা. কামাল হোসেন নেতৃত্বাধীন জাতীয় ঐক্যফ্রন্ট, একিএম বদরুদ্দোজার নেতৃত্বাধীন যুক্তফ্রন্ট, হুসেইন মুহম্মদ এরশাদের নেতৃত্বাধীন সম্মিলিত জাতীয় জোটের মধ্যে যারা নিবন্ধিত দলের সদস্য নন, তারা নিবন্ধিত দলগুলোর প্রার্থী হতে পারবেন।’

তিনি শুক্রবার দুপুরে নির্বাচন কমিশন ভবনে এক ব্রিফিংয়ে এসব কথা বলেন।

তিনি বলেন, প্রতীক বরাদ্দের আগে নির্বাচনী প্রচার চালানো যাবে না। প্রতীক বরাদ্দের পর ২১ দিন প্রচার চালাতে পারবেন প্রার্থীরা।

ইসি সচিব বলেন, আগামী সাতদিনের মধ্যে সব ধরনের প্রচার সামগ্রী সরিয়ে ফেলতে হবে। এক্ষেত্রে যারা পোস্টার, তোরণ, গেটসহ নানা ধরনের প্রচারণা চালিয়েছে, নিজ উদ্যোগে তাদের প্রচারণা সামগ্রী সরিয়ে ফেলতে হবে। নির্দেশ না মানলে আইনগত ব্যবস্থা নেওয়া হবে বলেও জানান তিনি।

তিনি আরও জানান, আগামী রোববার থেকে অনলাইনে মনোনয়নপত্র দাখিল করতে পারবেন প্রার্থীরা।

ইসি সচিব বলেন, মোট ৬৬ জন রিটার্নিং কর্মকর্তা নিয়োগ দিয়েছি আমরা। ৬৪টি জেলার জেলা প্রশাসককে রিটার্নিং কর্মকর্তা নিয়োগ করা হয়েছে। এ ছাড়া ঢাকা ও চট্টগ্রাম মেট্রো এলাকায় স্থানীয় বিভাগীয় কমিশনারকে রিটার্নিং অফিসার হিসেবে নিয়োগ দেওয়া হয়েছে। ৫৮০ জনের মতো উপজেলা নির্বাহী অফিসার, সহকারী কমিশনার ভূমি এবং জেলা অথবা উপজেলা নির্বাচন কর্মকর্তা আছে, তাদের সহকারী রিটার্নিং অফিসার হিসেবে নিয়োগ করা হয়েছে।

**রাজনৈতিক, ধর্মবিদ্বেষী ও খারাপ কমেন্ট করা থেকে বিরত থাকুন।**

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here