প্রিমিয়ার লিগ চ্যাম্পিয়ন ম্যানচেস্টার সিটির সঙ্গে তিন বছরের জন্য চুক্তি নবায়ন করলেন ইংলিশ উইঙ্গার রহিম স্টার্লিং। এ চুক্তির ফলে ২০২৩ সাল পর্যন্ত ইতিহাদে খেলার ছাড়পত্র পেলেন তিনি। নতুন চুক্তিতে তার সাপ্তাহিক বেতন ১ লাখ ৮০ হাজার পাউন্ড থেকে বাড়িয়ে করা হয়েছে ৩ লাখ পাউন্ড।

চলতি মাসের শুরুর দিকে জানা যায়, পাঁচ বছরের জন্য চুক্তি নবায়ন করতে মৌখিকভাবে সম্মত হয়েছেন ২৩ বছর বয়সী স্টার্লিং। কিন্তু পাঁচ বছরের জায়গায় চুক্তিটা হলো তিন বছরের। তবে সব মিলিয়ে আরো পাঁচ বছর তিনি ইতিহাদে থাকছেন।

সবচেয়ে আলোচিত ইস্যু স্টার্লিংয়ের বেতন। আগে সপ্তাহে পেতেন ১ কোটি ৯৫ লাখ টাকা, এখন তা বেড়ে হয়েছে ৩ কোটি ২৬ লাখ টাকা, যা ইংলিশ ফুটবলারদের মধ্যে সর্বোচ্চ। অর্থাৎ মাসে তার বেতন দাঁড়াবে প্রায় ১৩ কোটি ৫ লাখ টাকা ও বছরে প্রায় ১৬৩ কোটি ১১ লাখ টাকা! যদিও এখনো প্রিমিয়ার লিগের সেরা হতে পারেননি তিনি। সপ্তাহে ৩ লাখ ১৫ হাজার পাউন্ড বেতন নিয়ে ইংলিশ প্রিমিয়ার লিগে সেরা ম্যানইউর চিলিয়ান ফরোয়ার্ড অ্যালেক্সিস সানচেজ, যিনি চলতি বছর জানুয়ারির দলবদলে আর্সেনাল থেকে ম্যানইউতে নাম লেখান।

২০১৫ সালে লিভারপুল থেকে ৪৯ মিলিয়ন পাউন্ডে স্টার্লিংকে কিনে নেয় ম্যানসিটি। এতদিন তাকে সপ্তাহে ১ লাখ ৮০ হাজার পাউন্ড বেতন দিয়ে এসেছে সিটিজেনরা। এবার পারিশ্রমিকটা এক লাফে পৌঁছে গেল ৩ লাখ পাউন্ডে! মূলত তাকে আটকাতেই বেতন বাড়িয়ে দিতে সম্মত হয় ইংলিশ প্রিমিয়ার লিগ চ্যাম্পিয়নরা। কেননা তার লা লিগা জায়ান্ট রিয়াল মাদ্রিদে নাম লেখানো নিয়ে গুঞ্জন চলছিল। গতকাল চুক্তি নবায়নের পর সিটি টুইট করেছে, ‘সে কোথাও যাচ্ছে না। শনিবার স্টার্লিং ম্যানসিটিতে ২০২৩ সাল পর্যন্ত খেলে যাওয়ার অঙ্গীকার করেছেন।’

চুক্তিতে স্বাক্ষর করে আনন্দিত স্টার্লিং বলেন, ‘চুক্তিপত্রে স্বাক্ষর করে আমি অনেক খুশি। সিটিতে আমার অসাধারণ অগ্রগতি হয়েছে। এখানে আসার পর থেকেই আমি ভেবেছি, এটা সঠিক সিদ্ধান্ত ছিল। এ বিশ্বাস আমাকে উপকৃতই করেছে। আমি কৃতজ্ঞ।’ তিনি আরো বলেন, ‘প্রত্যেকটি মৌসুম এলেই আপনি আগের মৌসুমের চেয়ে ভালো কিছু করতে চাইবেন। আপনি চেষ্টা করবেন নিজের মধ্যে উন্নতি আনতে ও ভালো করতে।’

ম্যানসিটির সুযোগ-সুবিধা নিয়ে স্টার্লিং, ‘এখানে আমরা যে সুযোগ-সুবিধা পাই, তাতে না করার (চুক্তি নবায়ন) সুযোগ নেই। এখানে কোচিং স্টাফ ও খেলোয়াড়দের নিয়ে যে উত্কৃষ্ট পরিবেশ তৈরি করা হয়েছে, তাতে আপনার উন্নতি আনয়ন ও আগের চেয়ে ভালো করার সুযোগ রয়েছে।’

স্টার্লিংয়ের প্রশংসা করে তার চুক্তি নবায়নকে ক্লাবের জন্য ‘তাত্পর্যপূর্ণ অধ্যায়’ হিসেবে অভিহিত করেন ম্যানসিটির ফুটবল পরিচালক টিসিকি বেগিরিস্তাইন। তিনি বলেন, ‘গত দুই মৌসুমে নাটকীয়ভাবে উন্নতি সাধন করেছেন রহিম স্টার্লিং, এখন তিনি প্রিমিয়ার লিগের অন্যতম সেরা আগ্রাসী খেলোয়াড়। পরিসংখ্যানই তার হয়ে কথা বলবে। তিনি ক্ষিপ্রগতিসম্পন্ন, গোলের সামনে শক্তিশালী ও অনবদ্য। আধুনিক ফুটবলে একজন ফরোয়ার্ডের মধ্যে যা কিছু থাকতে হয়, তা রয়েছে স্টার্লিংয়ের মধ্যে। তিনি ম্যানসিটিতে তার ভবিষ্যতের ব্যাপারে অঙ্গীকার করায় আমরা সত্যিই অনেক আনন্দিত।’

রিয়ালের ধারাবাহিক আগ্রহের পরিপ্রেক্ষিতে তাকে নিয়ে কথা বলতে হয়েছে সিটি কোচ পেপ গার্দিওলাকে। তিনি সব সময়ই বলে এসেছেন, স্টার্লিংকে ছাড়ার কোনো কারণ নেই। তখন কথাটিকে কূটনৈতিক মনে হলেও আসলে কথা রাখলেন স্প্যানিশ কোচ।

**রাজনৈতিক, ধর্মবিদ্বেষী ও খারাপ কমেন্ট করা থেকে বিরত থাকুন।**

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here