তিন সপ্তাহ পরে দলে ফিরেছে লিওনেল মেসি। এসেই জোড়া গোল করলেন তিনি। তারপরও রক্ষা হলো না। রিয়াল বেটিসের কাছে মৌসুমের প্রথম পরাজয় বরণ করতে হলো কাতালানদের। বার্সার ঘরের মাঠে ৪-২ গোলে জয় তুলে নিয়েছে অপেক্ষাকৃত দুর্বল এই প্রতিপক্ষ।

মৌসুমের দ্বিতীয় হারেও শীর্ষস্থান হারাতে হয়নি বার্সাকে। তবে নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্বী অ্যাতলেতিকো মাদ্রিদের সঙ্গে তাদের দূরত্ব এখন মাত্র এক পয়েন্টের। ১২ ম্যাচে ২৪ পয়েন্ট বার্সার, আর ২৩ পয়েন্ট মাদ্রিদ ক্লাবের।

কাউন্টার অ্যাটাক, সঙ্গে রক্ষণে চমৎকার প্রতিরোধ- সব মিলিয়ে যোগ্য দল হিসেবে প্রথমার্ধে বার্সেলোনাকে পেছনে ফেলে রিয়াল বেতিস। ৬ মিনিটে প্রথম আক্রমণে যায় তারা। জিওভানি ল চেলসোর ক্রস থেকে বল পান জোয়াকুইন। তাকে এগিয়ে আসতে দেখে সামনে যান বার্সা গোলরক্ষক মার্ক আন্দ্রে টের স্টেগেন। আড়াআড়ি শট নিতে পারেননি জোয়াকুইন, গোলবারের উপর দিয়ে বল মারেন।

বার্সেলোনার আক্রমণে এদিন ছিল না ধার, রক্ষণও ছিল তটস্থ। ২০ মিনিটে তারই মাশুল দেয় তারা। উইলিয়াম কারভালহো কাতালানদের রক্ষণ চিড়ে বল বক্সে পাঠান। জুনিয়র ফিরপো দারুণ কৌশলে সার্জি রবের্তোকে ফাঁকি দিয়ে ডান পায়ের শটে বেতিসকে এগিয়ে দেন।

২৫ মিনিটে মেসির ফ্রি কিক থেকে লেঙ্গলেটের ভলি শক্ত হাতে রুখে দেন বেতিস গোলরক্ষক পাউ লোপেস। ৬ মিনিট পর অতিথিদের একটি চেষ্টা গোলবারের পাশ দিয়ে চলে যায়। ৩৪ মিনিটে ক্রিস্তিয়ান তেল্লোর ব্যাকপাস থেকে জোয়াকুইন বেতিসের ব্যবধান দ্বিগুণ করেন। বিরতিতে যাওয়ার ৫ মিনিট আগে লরেনের শট গোলপোস্টের অনেকখানি পাশ দিয়ে মাঠের বাইরে যায়।

দ্বিতীয়ার্ধেও তেমন ‍সুবিধা করতে পারেনি বার্সা। লুই সুয়ারেস ও মেসির সমন্বয়ে একবার আক্রমণে গিয়েছিল তারা। ৫৮ মিনিটে আর্জেন্টাইন ফরোয়ার্ডের পাস থেকে সুয়ারেসের আড়াআড়ি শট লক্ষ্যভ্রষ্ট হয়। বার্সার গোলের সুযোগ মেলে ৬৬ মিনিটে। তেল্লো ডিবক্সের মধ্যে জোর্দি আলবাকে টেনে ধরলে পেনাল্টির বাঁশি বাজান রেফারি। ৬৮ মিনিটে স্পট কিক থেকে গোল করেন মেসি।

অধিনায়কের গোলে বার্সা ফেরার ইঙ্গিত পেলেও ৭১ মিনিটে তারা আরেকটি গোল হজম করে। তেল্লোর অ্যাসিস্টে স্বাগতিকদের জালে তৃতীয়বার বল পাঠান ল চেলসো। ৮ মিনিট পর মেসির রক্ষণ চেড়া পাসে মুনির বল দেন আর্তুরো ভিদালকে। চিলিয়ান স্ট্রাইকার ব্যবধান কমান ৩-২ গোলে। ৮১ মিনিটে দ্বিতীয় হলুদ কার্ড দেখে মাঠ ছাড়েন ইভান রাকিতিচ।

১০ জনের বার্সার জালে ৮৩ মিনিটে চতুর্থবার বল পাঠায় বেতিস। জুনিয়রের পাসে ক্যানালেস করেন গোলটি। তাতে ঐতিহাসিক জয় নিশ্চিত করে বেতিস। ইনজুরি সময়ের দ্বিতীয় মিনিটে মেসি আরেকটি গোল শোধ দেন।

১০ বছরে প্রথমবার লা লিগায় বার্সাকে হারানোর স্বাদ পায় বেতিস। আর ন্যু ক্যাম্পে এই অবিস্মরণীয় জয়টি তারা পেয়েছে ২০ বছর পর। ১৯৯৮ সালের মে মাসে সবশেষ বার্সার মাঠে জিতেছিল বেতিস।

**রাজনৈতিক, ধর্মবিদ্বেষী ও খারাপ কমেন্ট করা থেকে বিরত থাকুন।**

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here