ভুলতে চাইলেই কি সব ভোলা যায়। কিছু ঘটনা বা কথা কখনও বিস্মৃত হওয়া যায়না। যেমন করে রাজশাহী-৫ আসনের সাবেক সংসদ সদস্য নাদিম মোস্তফা ও তার স্ত্রী নুরুন্নাহার পারুলের সীমাহীন দুর্নীতির দিন এখনো ভুলতে পারেনা মানুষ। স্বামীর রাজনৈতিক অংশীদার হতে গিয়ে সীমাহীন দুর্নীতিতে জড়িয়ে পড়েছিলেন নুরুন্নাহার পারুল। জ্ঞাত আয় বহির্ভূত সম্পদ অর্জনের অভিযোগে নুরুন্নাহার পারুলের বিরুদ্ধে মামলা করেছিলেন দুর্নীতি দমন কমিশন (দুদক)।

এদিকে দুর্নীতি দমন কমিশনের (দুদক) মামলা বাতিল চেয়ে করা আবেদন খারিজ করে দিয়েছেন হাইকোর্ট। ফলে বিচারিক আদালতে জ্ঞাত আয় বহির্ভূত সম্পদ অর্জনের মামলা চলতে বাধা নেই বলে জানিয়েছেন দুদক আইনজীবীরা।

এ সংক্রান্ত রুল নিষ্পত্তি শেষে চলতি বছরের ৩ জুলাই বিচারপতি নজরুল ইসলাম তালুকদার ও বিচারপতি ড. কে এম হাফিজুল আলমের সমন্বয়ে গঠিত হাইকোর্ট বেঞ্চ এ আদেশ দেন।

এ সময় আদালতে রাষ্ট্রপক্ষে ছিলেন ডেপুটি অ্যাটর্নি জেনারেল রুনা নাহরিন ও একেএম আমিন উদ্দিন। এছাড়াও দুদকের পক্ষে ছিলেন অ্যাডভোকেট একেএম ফারহান।

জানা গেছে, ২০০৮ সালের ৯ নভেম্বর সাবেক এমপি নাদিম মোস্তফার স্ত্রী নুরুন্নাহার পারুলের সম্পদ বিবরণী দাখিলের নোটিশ জারি করে দুদক। এর পরিপ্রেক্ষিতে একই বছরের ৩ ডিসেম্বর দুদকের সচিব বরাবর সম্পদ বিবরণী দাখিল করেন নুরুন্নাহার পারুল। কিন্তু দুদক ওই সম্পদ বিবরণীতে নুরুন্নাহার পারুলের স্থাবর সম্পদ, বিভিন্ন ব্যাংক, সঞ্চয়পত্র, শেয়ার, গাড়ির ক্রয় মূল্য, স্বর্ণালংকার, আসবাবপত্র, ব্যবসার পুঁজি, হাতে নগদ অর্থের পরিমাণ নিয়ে মিথ্যা ও ভিত্তিহীন তথ্য দেওয়ার অভিযোগ করে। একই সঙ্গে ১ কোটি ৩৭ লাখ ৭ হাজার ৯০০ টাকার টাকার সম্পদ অবৈধ ভাবে অর্জন করা ও দখলে রাখার অভিযোগ এনে তার বিরদ্ধে মামলা করে দুদক। ২০০৯ সালের ৯ এপ্রিল রমনা থানায় মামলাটি করেন দুদকের সহকারী পরিচালক এস এম রাশেদুর রেজা।

মামলাটি বাতিল চেয়ে ২০১১ সালের ২০ জানুয়ারি হাইকোর্টে আবেদন করা হয়। সে আবেদনের শুনানি নিয়ে হাইকোর্ট বিচারিক আদালতে চলমান এ মামলার কার্যক্রমের ওপর স্থগিতাদেশ দেন এবং মামলাটি বাতিলে কেন নির্দেশনা দেওয়া হবে না তা জানতে চেয়ে রুল জারি করেন।

সেই রুলের ওপর চলতি বছরের ৩ জুলাই শুনানি হয়। শুনানি শেষে আদালত নুরুন্নাহার নাহার পারুলের আইনজীবীদের করা আবেদন খারিজ করে দেন।

উল্লেখ্য, রাজশাহী-৫ (পুঠিয়া-দুর্গাপুর) আসনে বিএনপির প্রার্থী হয়েছেন অ্যাডভোকেট নাদিম মোস্তফা। তার নামে ১৪টি মামলা বিচারাধীন। এছাড়া তিনটি মামলা স্থগিত এবং একটি মামলা তদন্তাধীন।

**রাজনৈতিক, ধর্মবিদ্বেষী ও খারাপ কমেন্ট করা থেকে বিরত থাকুন।**

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here