লড়াইটা প্রায় ৭ মাসের। এত লম্বা সময়ে অনেকবারই ভেবেছেন আর হয়তো ফেরা হবে না মাঠে। আবার কখনো মনে করেছেন তার থেকে ৯ বছরের একটি বাচ্চাও জোরে বল করতে পারবে। কিন্তু এতসব ভেবেও কখনো ভেঙে পড়েননি। ফিরেছেন এবং নিজেকে প্রমাণ করেই ফিরেছেন। তিনি দক্ষিণ আফ্রিকার তারকা ফাস্ট বোলার ডেইল স্টেইন।

নিজের এমন সব ভাবনার কথাই জানিয়েছেন স্থানীয় এক সংবাদ মাধ্যমে। এত লম্বা সময় মাঠের বাইরে থেকেও কতোটা ছন্দে আছেন স্টেইন তার অস্ট্রেলিয়ার বিপক্ষে বোলিং দেখেই বোঝা যায়। তিন ওয়ানডে ম্যাচে মাত্র ১৩.৪২ গড়ে নিয়েছেন ৭টি উইকেট। আগুন ঝরানো বোলিং করে ফিরিয়ে এনেছেন পুরানো স্টেইনকে।

নিজের মাঠের বাইরে থাকা সময়গুলো বর্ণনা করে সংবাদমাধ্যমে ৩৫ বছর বয়সী স্টেইন বলেন, ‘খুব বেশিদিন হবে না, আমি তখনো ভাবতাম আর কখনো ক্রিকেটে ফিরতে পারব না। যখন আমার কাঁধ ভেঙে গেল, তখন আমার মধ্যে জেদ কাজ করছিল যে আমি ফিরবোই। কিন্তু এতে অনেক সময় লেগে গেল। একদম পাক্কা ছয় মাস পরে আমি বল হাতে নিতে পারলাম।’

‘আমি আমার ফিজিওকে মজা করে বলতাম, আমার বলের গতি এখন অনুর্ধ্ব-৯ বছরের বাচ্চাদের মতো। আমি তখন কাঁধের উপরে হাত তুলতে পারতাম, কিন্তু জোরে হাত ঘুরানোর শক্তিটাও পেতাম না।’

তবে স্টেইনের বিশ্বাস ছিল, একবার মাঠে ফিরতে পারলে সমস্যা তেমন হবে না। ডানহাতি এই বোলার বলেন, ‘আমি জানতাম একবার আমি খেলা শুরু করে দিলে এটা আমার কাছে মোটরবাইক চালানোর মতোই মনে হবে। কারণ আমি এটা অনেকবার করেছি এবং আমি খুবই ভাগ্যবান যে নিজের স্বাভাবিক অ্যাকশনেই বোলিং করতে পারি। ২০১৯ বিশ্বকাপের জন্য সম্পূর্ণ প্রস্তুত, এমনটাও জানিয়ে দেন।

**রাজনৈতিক, ধর্মবিদ্বেষী ও খারাপ কমেন্ট করা থেকে বিরত থাকুন।**

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here