দেশে বিদ্যুত উৎপাদন ও আইসিটি প্রশিক্ষণকেন্দ্র স্থাপনে দক্ষিণ কোরিয়ার বিনিয়োগ ও সহযোগিতা চেয়েছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা।

বাংলাদেশে নবনিযুক্ত দক্ষিণ কোরিয়ার রাষ্ট্রদূত হু কং-ইল মঙ্গলবার প্রধানমন্ত্রীর সাথে তার কার্যালয়ে সাক্ষাৎ করতে গেলে তিনি এ কথা বলেন।

প্রধানমন্ত্রীর প্রেস সচিব ইহসানুল করিম বৈঠক শেষে সাংবাদিকদের এ তথ্য জানিয়েছেন।

শেখ হাসিনা রাষ্ট্রদূতকে জানান, তার সরকার দেশের আইসিটি খাত উন্নয়নে গুরুত্ব দিচ্ছে এবং এবিষয়ে যদি দক্ষিণ কোরিয়া তাদের সহযোগিতা বাড়িয়ে দেয় তা উপকার বয়ে আনবে। সেই সাথে তিনি বিদ্যুৎ খাতে দক্ষিণ কোরিয়ার আরও বিনিয়োগ কামনা করেন।

রাষ্ট্রদূত হু কং-ইল বাংলাদেশের ক্রমবর্ধমান অর্থনীতির প্রশংসা করে বলেন, জিডিপির প্রবৃদ্ধি ছয় শতাংশের ওপর বজায় রাখতে পারা খুবই প্রশংসাযোগ্য। ‘এটা এক বিশাল অর্জন।’

দক্ষিণ কোরিয়ার রাষ্ট্রদূত জানান, তার দেশ অবকাঠামো উন্নয়ন ও জ্বালানি খাতে বাংলাদেশের সাথে সহযোগিতা করতে প্রস্তুত। ‘আরও কোরিয়ান বিনিয়োগকারী বাংলাদেশে বিনিয়োগ করতে আসবেন, কারণ এ দেশের ভবিষ্যত খুব উজ্জ্বল।’

রোহিঙ্গা সংকট নিয়ে তিনি বলেন, দক্ষিণ কোরিয়া এবিষয়ে জাতিসংঘের প্রস্তাবনা সমর্থন করে। ‘আমরা রোহিঙ্গাদের তাদের মাতৃভূমিতে নিরাপদ প্রত্যাবাসন চাই।’

রোহিঙ্গা উদ্বাস্তুদের জন্য দক্ষিণ কোরিয়া ইতিমধ্যে ৫০ লাখ মার্কিন ডলার সহায়তা দিয়েছে বলে জানান রাষ্ট্রদূত হু কং-ইল।

**রাজনৈতিক, ধর্মবিদ্বেষী ও খারাপ কমেন্ট করা থেকে বিরত থাকুন।**

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here