সতেরো পেরিয়ে আঠারোতে কদিন পরই পা রাখবেন নাঈম হাসান। চেহারায় কৈশোরের ছাপ স্পষ্ট। কথাতে আছে কিছুটা জড়তা। তবে মাঠে নামলে পরিণত এক ক্রিকেটার। পারফরম্যান্সে দুর্বিনীত, বিশ্বাসে অবিচল।

চট্টগ্রাম টেস্টের ফলাফল নিয়ে সবাই যখন সংশয়ে, তখন দলের নবীনতম সদস্য নাঈমই শোনালেন জয়ের বিশ্বাসের কথা, ‘আমাদের পুঁজি যতখানি আসবে, অতখানি নিয়েই আমরা লড়াই করবো এবং আশা করি আমরা জিতব।’

সাগরিকার জহুর আহমেদ চৌধুরী স্টেডিয়ামে দ্বিতীয় দিন শেষে দ্বিতীয় ইনিংসে বাংলাদেশের সংগ্রহ ৫ উইকেটে ৫৫ রান। ওয়েস্ট ইন্ডিজের চেয়ে স্বাগতিকরা এগিয়ে ১৩৩ রানে, হাতে ৫ উইকেট। নাঈম মনে করেন এখান থেকে শেষের ব্যাটসম্যানরা ঘুরে দাঁড়িয়ে ভালো সংগ্রহ এনে দিতে পারেন দলকে।

প্রত্যাশা মতো পুঁজি যদি নাও আসে, উইন্ডিজ ব্যাটসম্যানদের ঘূর্ণিজালে বেঁধে ফেলতে আত্মবিশ্বাসী অভিষেকে সবচেয়ে কম বয়সে ৫ উইকেট নেয়ার বিশ্বরেকর্ড গড়া এ অফস্পিনার।

‘আমরা তো এখনো অলআউট হইনি। ভালো খেলতে পারলে আমাদের স্কোর ৩০০-৩৫০ হতে পারে! আবার অল্প রানেও আউট হয়ে যেতে পারি। যদি বড় স্কোর হয় তাহলে তো আমাদের বোলারদের জন্য সহজ হয়ে যাবে। আমাদের যে বোলিং ইউনিট, সবাইকে নিয়ে তাতে আমরা যদি ভালো জায়গায় বোলিং করি দুইশ রান ওদের জন্য কঠিন হয়ে যাবে।’

দেশের মাটিতে ওয়েস্ট ইন্ডিজের বিপক্ষে এ পর্যন্ত ৬টি টেস্ট খেলেছে বাংলাদেশ। একটিতে ড্র আর পাঁচ ম্যাচে হার। আক্ষেপ মেটানো জয়টা চট্টগ্রামেই আসবে কিনা সেটির উত্তর হয়তো মিলবে তৃতীয় দিনের সকালেই!

**রাজনৈতিক, ধর্মবিদ্বেষী ও খারাপ কমেন্ট করা থেকে বিরত থাকুন।**

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here