মার্কিন সেনাদের ইরাকের ভূখণ্ড ছেড়ে চলে যাওয়ার আহ্বান জানিয়েছেন দেশটির সংসদ সদস্যরা। তারা বলেছেন, ইরাক থেকে তাকফিরি সন্ত্রাসী গোষ্ঠী দায়েশ নির্মূল হওয়ার পর এক বছর পার হলেও সেখানে মার্কিন সেনাদের উপস্থিতির কোনো গ্রহনযোগ্যতা নেই।

ইরাকের সংসদ সদস্য আমের আল শেবলি ইরানের ইংরেজি ভাষার টেলিভিশন চ্যানেল প্রেস টিভিকে গতকাল (শুক্রবার)  বলেছেন, “আমি মনে করি মার্কিন সেনাদের উপস্থিতি ইরাকের সার্বভৌমত্বের স্পষ্ট লঙ্ঘন।” তিনি বলেন, ইরাকে সন্ত্রাসবাদ নির্মূলের পর দেশে উপস্থিত সব বিদেশী সেনাদের বের করে দেয়ার বিষয়ে আগের পার্লামেন্টের উচিত ছিল কার্যকরী ব্যবস্থা গ্রহণ করা।

আরেক সংসদ সদস্য কাদিম আল সায়েদি বলেন, “সার্বভৌমত্ব যেকোনো দেশের সবচেয়ে মূল্যবান সম্পদ। তাকফিরি দায়েশের বিরুদ্ধে লড়াইয়ে ইরাকি জনগণের ত্যাগ স্বীকারের মাধ্যমে এটা প্রমাণিত যে দেশের সার্বভৌমত্ব তাদের কাছে কতটা গুরুত্বপূর্ণ। বর্তমানে কোনো দেশই তার ভূখণ্ডে বিদেশি সেনার উপস্থিতি মেনে নেবে না।”

এছাড়া, ইরাকে মার্কিন সেনাদের উপস্থিতিকে একটি নির্দিষ্ট আইনের আওতায় আনার দাবি জানিয়েছেন কোনো কোনো আইনপ্রণেতা। কুর্দি ডেমোক্রেটিক পার্টির সংসদ সদস্য দিয়ার বারাবারি বলেছেন, কেবলমাত্র ইরাকের কেন্দ্রীয় সরকারের সঙ্গে চুক্তির মাধ্যমে তার দেশে বিদেশি সেনার উপস্থিতি বজায় থাকতে পারবে এবং এসব চুক্তি পাসের জন্য সংসদের অনুমোদন নিতে হবে।

**রাজনৈতিক, ধর্মবিদ্বেষী ও খারাপ কমেন্ট করা থেকে বিরত থাকুন।**

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here