ইরানের রাজধানী তেহরানে সোমবার রাতে একটি সমাপনী বিবৃতি প্রকাশের মধ্যদিয়ে ৩২তম ইসলামি ঐক্য সম্মেলন শেষ হয়েছে। সমাপনী বিবৃতিতে মুসলিম নেতৃবৃন্দ ও চিন্তাবিদগণ ফিলিস্তিন সংকটকে মুসলিম বিশ্বের প্রধান সমস্যা এবং ইহুদিবাদী ইসরাইলকে মুসলমানদের এক নম্বর শত্রু হিসেবে চিহ্নিত করেছেন।

তারা বলেছেন, কুদস দখলদার ইসরাইল সরকারকে প্রতিহত করার লক্ষ্যে মুসলমানদের সব শক্তিকে কাজে লাগাতে হবে। সম্মেলনে অংশগ্রহণকারীরা মুসলমানদের মধ্যে ঐক্য বজায় রাখার পাশাপাশি অভ্যন্তরীণ ও আঞ্চলিক কোন্দলের অবসান ঘটানোর আহ্বান জানান। বিবৃতিতে তারা বলেন, মুসলিম মাজহাবগুলোর মধ্যকার অভিন্ন দিকগুলোকে প্রাধান্য দিয়ে ছোটখাট মতপার্থক্য ভুলে যেতে হবে।

তেহরানে অনুষ্ঠিত ৩২তম ইসলামি ঐক্য সম্মেলন থেকে আমেরিকার মধ্যপ্রাচ্য সংক্রান্ত ‘শতাব্দির সেরা চুক্তি’ পরিকল্পনা প্রত্যাখ্যান করার পাশাপাশি তেল আবিব থেকে ইসরাইলের রাজধানী বায়তুল মুকাদ্দাসে স্থানান্তরের পরিকল্পনার তীব্র বিরোধিতা করা হয়।

ঐক্য সম্মেলনের সমাপনী বিবৃতিতে মুসলমানদের প্রথম ক্বেবলা আল-আকসা মসজিদ-সমৃদ্ধ বায়তুল মুকাদ্দাস শহরকে রাজধানী করে স্বাধীন ফিলিস্তিন রাষ্ট্র গঠনের জোর দাবি জানানো হয়। এ ছাড়া, এ সম্মেলনে অংশগ্রহণকারী মুসলিম আলেম ও চিন্তাবিদরা ইহুদিবাদী ইসরাইলের সঙ্গে আরব দেশগুলোর সম্পর্ক স্থাপনের প্রচেষ্টার ঘোর বিরোধিতা ও নিন্দা জানান।

নবীজী হযরত মুহাম্মাদ (সা.)’র পবিত্র জন্মবার্ষিকী উপলক্ষে প্রতি বছর রবিউল আউয়াল মাসে ইরানে ইসলামি ঐক্য সম্মেলনের আয়োজন করা হয়। এ বছরের সম্মেলনে বিশ্বের ৮১ দেশের ৩৫০ জনেরও বেশি মুসলিম আলেম ও চিন্তাবিদ অংশগ্রহণ করেন। তিন দিনব্যাপী এ সম্মেলন শনিবার শুরু হয়েছিল।

**রাজনৈতিক, ধর্মবিদ্বেষী ও খারাপ কমেন্ট করা থেকে বিরত থাকুন।**

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here