বাংলাদেশের আসন্ন একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচন পর্যবেক্ষণ করবে না ইউরোপীয় ইউনিয়ন (ইইউ) পার্লামেন্ট। ইউরোপীয় ইউনিয়নের প্রতিনিধিদের ঢাকাস্থ কার্যালয়ের এক বিবৃতিতে এ তথ্য জানানো হয়েছে।

ইউরোপীয় পার্লামেন্টের ডেমোক্রেসি সাপোর্ট ও নির্বাচনী সহায়ক গ্রুপের কো-চেয়ারদের বিবৃতিতে বলা হয়, ‘ইইউ পার্লামেন্ট আসন্ন নির্বাচন প্রক্রিয়া পর্যবেক্ষণ করবে না এবং ভোটের ফল ঘোষণার পর কোনো মন্তব্যও করবে না। এমনকি ইউরোপীয় ইউনিয়নের নির্বাচনী পর্যবেক্ষকদলও থাকছে না।‌‌’

ইইউ পার্লামেন্টের দুই সদস্য ডেভিড ম্যাকঅ্যালিস্টার ও লিন্ডা ম্যাকআভান স্বাক্ষরিত বিবৃতিতে বলা হয়, ‘ইইউ পার্লামেন্টের কোনো সদস্যকে এই নির্বাচন প্রক্রিয়া নিয়ে পার্লামেন্টের পক্ষ থেকে পর্যবেক্ষণ বা মন্তব্য করতে দায়িত্বও দেয়া হয়নি। এ নিয়ে কোনো সদস্যের বক্তব্য ইউরোপীয় পার্লামেন্ট বা ইউরোপীয় ইউনিয়নের প্রতিনিধিত্ব করবে না।’

‌বিবৃতিতে উল্লেখ করা হয়েছে, ইউরোপীয় পার্লামেন্টের ১৫ নভেম্বরের রেজল্যুশনের ভিত্তিতে এই বিবৃতি দেওয়া হয়েছে। রেজল্যুশনে নির্বাচন শান্তিপূর্ণ, স্বচ্ছ এবং অংশগ্রহণমূলক হবে বলে আশা প্রকাশ করা হয়।

এতে নির্বাচনকালে রাজনৈতিক শক্তিগুলোকে যেকোনো ধরনের সহিংসতা এড়ানোর আহ্বান জানানো হয়, যাতে করে নাগরিকরা তাঁদের পছন্দের প্রার্থীকে বেছে নিতে পারেন।

ইউরোপীয় ইউনিয়নের রীতি অনুযায়ী ইউরোপীয় পার্লামেন্ট কাউকে নির্বাচন পর্যবেক্ষণের দায়িত্ব দিলে তারা ইইউ নির্বাচন পর্যবেক্ষক মিশনের সঙ্গেই কাজ করেন। কিন্তু ইউরোপীয় ইউনিয়ন গত অক্টোবরেই নির্বাচন কমিশনকে জানিয়েছিল, এবার তারা পূর্ণাঙ্গ কোনো পর্যবেক্ষক মিশন পাঠাবে না। কেবল দুজন বিশেষজ্ঞ নির্বাচন দেখতে বাংলাদেশে আসবেন।

ওই দুই বিশেষজ্ঞ ইতোমধ্যে (২৭ নভেম্বর) ঢাকা পৌঁছেছেন। তারা এখন থেকে আগামী ১৫ জানুয়ারি পর্যন্ত বাংলাদেশে অবস্থান করে নির্বাচন পর্যবেক্ষণ করবেন। এ দু’জন বিশেষজ্ঞ হলেন- ডেভিড নোয়েল ওয়ার্ড ও ইরিনা মারিয়া গৌনারি। পর্যবেক্ষণ শেষে তারা এ নিয়ে ইইউ’র কাছে বিস্তারিত প্রতিবেদন জমা দেবেন।

এর আগে ২০০৬ সালে বাংলাদেশের নির্বাচন স্থগিত হয়ে গেলে ইউরোপীয় ইউনিয়নের পর্যবেক্ষক মিশনের সফর বাতিল করতে হয়েছিল। আর বিএনপিসহ অধিকাংশ দলের বর্জন করায় ২০১৪ সালে অর্ধেকের বেশি আসনে আওয়ামী লীগ নেতৃত্বাধীন মহাজোটের প্রার্থীরা বিনা প্রতিদ্বন্দ্বিতায় নির্বাচিত হয়। ওই নির্বাচনেও ইইউ পর্যবেক্ষক পাঠায়নি।

**রাজনৈতিক, ধর্মবিদ্বেষী ও খারাপ কমেন্ট করা থেকে বিরত থাকুন।**

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here