পাকিস্তানের প্রধানমন্ত্রী ইমরান খান বলেছেন, তার ক্ষমতাসীন দল ও দেশের প্রভাবশালী সেনাবাহিনী ভারতের সঙ্গে সম্পর্কের উন্নতি ও বিরোধপূর্ণ সম্পর্কের অবসান চায়।

তিনি বুধবার পাঞ্জাব প্রদেশের কারতারপুরে ভারতের সঙ্গে একটি সীমান্ত ক্রসিং উদ্বোধন করার সময় এ মন্তব্য করেন। পাক প্রধানমন্ত্রী বলেন, তার সরকার ও সেনাবাহিনী ভারতের সঙ্গে একটি ‘সুসভ্য সম্পর্ক’ প্রতিষ্ঠা করতে চায়।

বন্ধুত্ব স্থাপনের জন্য ভারত এক পা অগ্রসর হলে পাকিস্তান দুই পা অগ্রসর হবে বলেও জানান ইমরান খান। তিনি বলেন, এক্ষেত্রে পাকিস্তানের ক্ষমতাসীন দল, অন্যান্য রাজনৈতিক দল, সেনাবাহিনী ও জনগণ অভিন্ন অবস্থান গ্রহণ করেছে।

দক্ষিণ এশিয়ায় শান্তি প্রতিষ্ঠার দৃঢ় ইচ্ছা প্রকাশ করে পাক প্রধানমন্ত্রী বলেন, শুধুমাত্র আলোচনা এবং মানবতার প্রতি অগাধ সম্মান প্রদর্শনের মাধ্যমেই কেবল কাশ্মির বিতর্কের অবসান ঘটানো সম্ভব।

তিনি আরো বলেন, ভারত ও পাকিস্তানের মতো দু’টি পরমাণু শক্তিধর দেশের মধ্যে যারা যুদ্ধের কথা বলে তারা বোকার স্বর্গে বসবাস করছে। ইমরান খান বলেন, “পরমাণু যুদ্ধে দুই পক্ষই পরাজিত হয়। ঘৃণা পোষণ করে কোনোদিন সমস্যার সমাধান হয় না।”

তিনি বলেন, গত ৭০ বছর ধরে ভারত ও পাকিস্তানের মধ্যে শত্রুতাই কেবল বেড়েছে। এর পেছনে দুই দেশেরই ভূমিকা রয়েছে বলে তিনি মন্তব্য করেন। পাক প্রধানমন্ত্রী বলেন, সম্পর্ক উন্নয়নের জন্য যখনই দু’পক্ষ এক পা অগ্রসর হয়েছে তখন এমন কিছু ঘটনা ঘটেছে যাতে দুই পা পিছিয়ে যেতে হয়। পরস্পরকে দোষারোপের নীতি থেকে বেরিয়ে তিনি ভারত ও পাকিস্তানের মধ্যে বন্ধুত্বপূর্ণ সম্পর্ক প্রতিষ্ঠার আহ্বান জানান।

**রাজনৈতিক, ধর্মবিদ্বেষী ও খারাপ কমেন্ট করা থেকে বিরত থাকুন।**

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here