আসন্ন একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনে  অংশগ্রহণকারী প্রার্থীদের আজ থেকে মনোনয়নপত্র যাচাই-বাছাই শুরু হয়েছে। বিশ্লেষন শেষে চূড়ান্ত প্রার্থীদের নাম ঘোষণা করা হবে মনোনয়ন প্রত্যাহারের শেষ দিন ৯ ডিসেম্বরে। এরই মধ্যে বিভিন্ন কারণে সারাদেশে বেশ কয়েকজন প্রার্থীর মনোনয়নও বাতিল করা হয়েছে-

টাঙ্গাইল-৪ ও ৮ আসনে কৃষক শ্রমিক জনতা লীগের সভাপতি বঙ্গবীর কাদের সিদ্দিকীর মনোনয়ন বাতিল করা হয়েছে। আজ রোববার মনোনয়নপত্র যাচাই-বাছাই করে তার মনোনয়ন বাতিল করে রিটার্নিং কর্মকর্তা।

জাতীয় পার্টির মহাসচিব এবিএম রুহুল আমিন হাওলাদারের মনোনয়নপত্র বাতিল করেছেন রিটার্নিং কর্মকর্তা। পটুয়াখালী-১ আসনে দলীয় প্রার্থী হয়েছিলেন তিনি। ঋণ খেলাপি হওয়ায় তার মনোনয়নপত্র বাতিল করা হয়েছে বলে জানিয়েছেন রিটার্নিং কর্মকর্তা। এ আসনে আরও চারজনের মনোনয়নপত্র বাতিল করা হয়। তবে বিএনপির দুই প্রার্থী ও আওয়ামী লীগের প্রার্থীর মনোনয়ন বৈধ ঘোষণা করা হয়েছে।

পটুয়াখালী-৩ আসনের বিএনপি মনোনীত প্রার্থী স্বাক্ষর না থাকায় গোলাম মাওলা রনির মনোনয়নপত্র বাতিল করেছে জেলা রিটার্নিং অফিসার।
রোববার দুপুর ১২টায় পটুয়াখালী জেলা প্রশাসকের কার্যালয়ে মনোনয়নপত্র বাছাইয়ের সময় এ ঘোষণা দেয়া হয়। হলফনামায় স্বাক্ষর না থাকায় গোলাম মাওলা রনির মনোনয়নপত্র বাতিল করা হয়েছে বলে জানা গেছে।

ফেনী-১ আসনে বিএনপি চেয়ারপারসন বেগম খালেদা জিয়ার মনোনয়নপত্র বাতিল ঘোষণা করা হয়েছে। রোববার সকাল সাড়ে ১০টায় মনোনয়নপত্র যাচাই-বাছাইকালে জেলা রিটার্নিং কর্মকর্তা ওয়াহিদুজ্জামান তার মনোনয়ন বাতিল করেন। জানা গেছে, বিভিন্ন মামলায় সাজা পাওয়ায় খালেদা জিয়ার মনোনয়নপত্রটি বাতিল করা হয়েছে।

বগুড়া ৬ ও ৭ আসনেও বিএনপি চেয়ারপারসন খালেদা জিয়ার মনোনয়নপত্র বাতিল করে দিয়েছেন বগুড়ার জেলা রিটার্নিং কর্মকর্তা ফয়েজ আহাম্মদ।
এর ফলে তিনটি আসনেই মনোনয়নপত্র বাতিল হওয়ায় একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনে আর প্রার্থিতা রইলো না খালেদা জিয়ার।

যশোর-২ আসনে বিএনপির মনোনীত প্রার্থী সাবিরা সুলতানার দণ্ড স্থগিতের বিরুদ্ধে চেম্বার আদালতের আদেশ বহাল রেখেছেন আপিল বিভাগের নিয়মিত বেঞ্চ। রোববার প্রধান বিচারপতি সৈয়দ মাহমুদ হোসেনের নেতৃত্বে সাত সদস্যের নিয়মিত বেঞ্চ এ আদেশ বহাল রাখেন। এর ফলে আসন্ন একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনে সাবিরা সুলতানার অংশ নেওয়ার সুযোগ থাকল না।

ঋণ খেলাপীর দায়ে টাঙ্গাইল-৮ (সখিপুর-বাসাইল) আসনে কৃষক শ্রমিক জনতা লীগের সভাপতি কাদের সিদ্দিকীর মনোনয়নপত্র বাতিল করা হয়েছে। রোববার (০২ ডিসেম্বর) টাঙ্গাইল জেলা প্রশাসকের কার্যালয়ে মনোনয়নপত্র যাচাই-বাছাই শেষে রিটার্নিং অফিসার শহিদুল ইসলাম এ ঘোষণা দেন।

হলফনামায় স্বাক্ষর না থাকায় পটুয়াখালী-৩ আসনের বিএনপি মনোনীত প্রার্থী গোলাম মাওলা রনির মনোনয়নপত্র বাতিল করেছেন জেলা রিটার্নিং অফিসার। রোববার দুপুর ১২টায় পটুয়াখালী জেলা প্রশাসকের কার্যালয়ে মনোনয়নপত্র বাছাইয়ের সময় এ ঘোষণা দেয়া হয়।

ঢাকা-৯ আসনে বিএনপির স্থায়ী কমিটির সদস্য মির্জা আব্বাসের স্ত্রী মহিলা দলের সভাপতি আফরোজা আব্বাসের মনোনয়ন স্থগিত করা হয়েছে। আজ রোববার মনোনয়ন যাচাই-বাছাইকালে এ স্থগিতাদেশ দেয়া হয়। এ বিষয়ে পরে সিদ্ধান্তের কথা জানানো হবে বলে রিটার্নিং কর্মকর্তার পক্ষ থেকে জানানো হয়েছে।

গোপালগঞ্জ-৩ আসনে বিএনপির প্রার্থী এস এম জিলানীর মনোনয়ন পত্র বাতিল করা হয়েছে।তবে কি কারনে বাতিল হয়েছে তা এখনো জানা যায়নি।

ঢাকা-১ আসনে বিএনপির দুই প্রার্থী আবু আশফাক ও ফাহিমা হোসাইন জুবলির মনোনয়নই বাতিল ঘোষণা করা হয়েছে।

হবিগঞ্জ-১ আসনে এমপি প্রার্থী সাবেক অর্থমন্ত্রী শাহ এএমএস কিবরিয়ার ছেলে রেজা কিবরিয়ার মনোনয়নপত্র বাতিল হয়েছে।সকাল ১১টার দিকে হবিগঞ্জের রিটার্নিং অফিসার ও জেলা প্রশাসক মাহমুদুল কবীর মুরাদ এ মনোনয়নপত্র বাতিল করেন।

রাজশাহী-১ (তানোর-গোদাগাড়ী) আসনে বিএনপির প্রার্থী ও সাবেক মন্ত্রী ব্যারিস্টার আমিনুল হকের মনোনয়নপত্র বাতিল হয়েছে। মামলাসংক্রান্ত সার্টিফাইড কপি না থাকায় তার মনোনয়নপত্র বাতিল করে দেন রিটার্নিং কর্মকর্তা।

চট্টগ্রামে বিএনপি মনোনীত কয়েকজন প্রার্থীর মনোনয়ন বাতিল ঘোষণা করা হয়েছে। আজ রোববার মনোনয়ন যাচাই-বাছাই করে এসব মনোনয়ন বাতিল ঘোষণা করা হয়।
তারা হলেন, চট্টগ্রাম-৫ আসনে মীর নাসির উদ্দীন ও তার ছেলে মীর হেলাল, চট্টগ্রাম-৮ আসনে এম মোরশেদ খান, চট্টগ্রাম-৭ আসনে গিয়াসউদ্দিন কাদের ও তার ছেলে সামির কাদের চৌধুরী, চট্টগ্রাম-৩ আসনে এটিএম আবু তাহের ও আসলাম চৌধুরী।

মানিকগঞ্জ-১ আসনে বিএনপি মনোনীত প্রার্থী দৌলতপুর উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান তোজাম্মেল হকের অনলাইন আবেদন যথাযথভাবে না হওয়া ও চেয়ারম্যান পদ থেকে তার পদত্যাগপত্র গৃহীত না হওয়ায় তার মনোনয়নপত্র বাতিল করা হয়।

মানিকগঞ্জ-২ আসনে বিএনপি প্রার্থী সাবেক এমপি মঈনুল ইসলাম খানের মনোনয়নে বিএনপির মহাসচিবের স্বাক্ষরে মিল না থাকা এবং একই আসনে বিএনপির আরেক প্রার্থী সিংগাইর উপজেলা চেয়ারম্যান আবিদুর রহমান রোমান চেয়ারম্যান পদ থেকে তার পদত্যাগপত্র গৃহীত না হওয়ার তার মনোনয়নপত্র বাতিল করা হয়।

মানিকগঞ্জ-৩ আসনে বিএনপির প্রার্থী সদর উপজেলা চেয়ারম্যান আতাউর রহমান আতার পদত্যাগপত্র গৃহীত না হওয়ায় মনোনয়নপত্র অবৈধ ঘোষণা করা হয়।

নাটোর-২ (সদর-নলডাঙ্গা) আসনে  বিএনপির সাংগঠনিক সম্পাদক রুহুল কুদ্দুস তালুকদার দুলুর মনোনয়নপত্র বাতিল করা হয়েছে। মনোনয়ন যাচাই-বাছাইয়ের দিনে আজ রোববার নাটোর জেলা প্রশাসকের সম্মেলনকক্ষে জেলা প্রশাসক ও রিটার্নিং কর্মকর্তা শাহ রিয়াজ দুলুর মনোনয়ন অবৈধ বলে ঘোষণা দেন।

আদালতে দণ্ডিত হওয়ায় খাগড়াছড়িতে বিএনপি মনোনিত প্রার্থী ওয়াদুদ ভুইয়ার মনোনয়ন বাতিল করা হয়েছে।

**রাজনৈতিক, ধর্মবিদ্বেষী ও খারাপ কমেন্ট করা থেকে বিরত থাকুন।**

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here