ফরাসি লিগ ওয়ানে উড়তে থাকা পিএসজিকে থামিয়ে দিয়েছে বোর্ডেক্স। প্রতিপক্ষের মাঠে এ ড্রয়ের মধ্য দিয়ে লিগে এবারের মৌসুমে প্রথম পয়েন্ট হারাল পিএসজি।

এস্তাদিও আটলান্টিকে গতকাল রাতে পিএসজিকে স্বাগত জানায় বোর্ডেক্স। দলটির বিপক্ষে পিএসজি শিবিরের সেরা তারকা নেইমার ও কিলিয়ান এমবাপের গোলের পর ২-২ গোলে সমতায় শেষ হয়েছে ম্যাচটি।

বোর্ডেক্সের বিপক্ষে মাঠে নামার আগে শেষ ১৪ ম্যাচে শতভাগ জয়ের ধারা ধরে রেখেছিল পিএসজি। গতকাল রাতে ড্রয়ে পয়েন্ট হারানোয় টেবিলের শীর্ষে থাকা পিএসজির পয়েন্ট এখন ১৫ ম্যাচ শেষে ৪৩।

পিএসজি রোববার বোর্দোর জালে বল জড়ানোর প্রথম সুযোগ পেয়েছিল ৩২তম মিনিটে। কিন্তু ডি-বক্সে ফাঁকায় বল পেয়ে লক্ষ্যভ্রষ্ট শট নেন আনহেল দি মারিয়া। তবে এগিয়ে যেতে বেশিক্ষণ অপেক্ষায় থাকতে হয়নি অতিথিদের। ৩৪তম মিনিটেই দানি আলভেসের বাড়ানো বল ডান পায়ের শটে জালে পাঠান নেইমার। চলতি লিগে ব্রাজিলিয়ান ফরোয়ার্ডের এটি ১১তম গোল। বিরতির আগে ভাগ্য ভাল হলে দলটি ব্যবধান দ্বিগুন করতে পারতো। কিন্তু অ্যাঙ্গেল ডি মারিয়ার বাঁ পায়ের শট পোস্টে বাধা পায়।

বিরতির পর অল্প সময়ের মধ্যে সমতায় ফেরে বোর্দো। ৫৩তম মিনিটে স্বাগতিকদের হয়ে স্পট কিকে গোল করেন জিমি ব্রিয়াঁ। এরপরই চোটে পড়া নেইমারকে তুলে নেন পিএসজি কোচ। তারপরও পিএসজির খেলায় পড়েনি কোন প্রভাব।

নেইমার মাঠ ছাড়ার কিছুক্ষণের মধ্যে আবার এগিয়ে যায় পিএসজি। এবার দলটির হয়ে গোল করেন কিলিয়ান এমবাপে। ৬৬তম মিনিটে ইউলিয়ান ড্রাক্সলারের পাস পেয়ে জোরালো শটে প্রতিপক্ষের জালে বর জড়িয়ে আনন্দে মাতের ফ্রান্সের তরুণ এ ফরোয়ার্ড। তাতে চলতি লিগ ওয়ানে গোলদাতার (১২) তালিকায় এককভাবে শীর্ষে উঠলেন তিনি।

রোববার জয়ের একবারে কাছেই ছিল পিএসজি। কিন্তু ম্যাচের ৮৪তম মিনিটে তাদের সেই আশায় ঘি ঢেলে দেন বোর্দোর ডেনমার্কের ফরোয়ার্ড আন্দ্রেয়াস কর্নিলিউস। হেডে গোলরক্ষক আলফুঁস আরিওলাকে পরাস্ত করেন তিনি। যে কারণে ২-২ গোলে ড্রয়ে শেষ হয ম্যাচ।

**রাজনৈতিক, ধর্মবিদ্বেষী ও খারাপ কমেন্ট করা থেকে বিরত থাকুন।**

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here