ঠিক বলেছে ভিভিএস লক্ষণ। গ্রেগ চ্যাপেলের কারণেই ভেঙে গিয়েছেল ভারতীয় ক্রিকেটের সুখের সংসার। যা তিনি নিজের হাতে করে গড়ে তুলেছিলেন। এমনই মনে করেন প্রাক্তন ভারতীয় ক্রিকেট দলের অধিনায়ক এবং বাঙালির ক্রিকেট আইকন সৌরভ গঙ্গোপাধ্যায়।

গ্রেগ চ্যাপেলের মনোভাব অত্যন্ত কঠোর এবং অনমনীয়৷ চ্যাপেল জানেন না কীভাবে আন্তর্জাতিক দল চালাতে হয়৷ টিম ইন্ডিয়ার প্রাক্তন অজি কোচ সম্পর্কে এমনই বিস্ফোরক মতামত ব্যক্ত করেন ভিভিএস লক্ষ্মণ৷ নিজের আত্মজীবনী ‘২৮১ অ্যান্ড বিয়ন্ড’এ একদা নিজের জাতীয় কোচ সম্পর্কে এমনটাই জানিয়েছেন টিম ইন্ডিয়ার ‘ভেরি ভেরি স্পেশাল’ মিডল অর্ডার ব্যাটসম্যান৷

গ্রেগের কোচিংকালকে নিজের ক্রিকেট কেরিয়ারের সব থেকে খারাপ সময় বলেও উল্লেখ করেন লক্ষ্মণ৷ ব্যাটসম্যান হিসাবে গ্রেগ চ্যাপেলের প্রতি তাঁর শ্রদ্ধা থাকলেও কোচ চ্যাপেলকে নিয়ে সম্পূর্ণ ভিন্ন মেরুতে অবস্থান করেন ভিভিএস৷ লক্ষ্মণ আরও জানান, গ্রেগ চ্যাপেলের কোচিংয়ে ভারতীয় দলে দু’তিনটি গোষ্ঠী তৈরি হয়েছিল৷ বিশ্বাসযোগ্যতা বলে দলে কিছু ছিল না৷ চোখের সামনে দলটা ভেঙে যেতে দেখেছিলেন তিনি৷

তাঁর দলের অন্যতম নির্ভরযোগ্য ব্যাটসম্যানের বক্তব্যকে সমর্থন করেছেন সৌরভ। তিনি বলেছেন, “আমি পড়েছি। লক্ষণ ঠিকই বলেছে।” গ্রেগ চ্যাপেলের জামানায় কোচের বিরুদ্ধে প্রথম বিদ্রোহ শুরু করেছিলেন সৌরভ। যা নিয়ে অনেক বিতর্ক হয়েছে। ভারতের সংসদেও সেই বিতর্কের আঁচ ছড়িয়ে পড়েছিল। ২০০৭ সালের ওয়েস্ট ইন্ডিজ বিশ্বকাপে ভারতীয় দলের ভরাডুবি হয়েছিল। তারপরে গ্রেগ চ্যাপেলের বিরুদ্ধে মুখ খুলেছিলেন সচিন তেণ্ডুলকর। এরপরেই অবশ্য ভারতীয় দলের কোচের পদ থেকে সরে যান গ্রেগ।

সোমবার আন্তঃজেলা টি-২০ ফাইনাল উপলক্ষে বীরভূম জেলার সিউড়িতে হাজির ছিলেন সৌরভ। সেখানেই ভিভিএস লক্ষণের আত্মজীবনী এবং গ্রেগ চ্যাপেল নিয়ে সাংবাদিকদের করা প্রশ্নের উত্তরে দিতে গিয়ে লক্ষণকেই সমর্থন করেন তিনি। একই সঙ্গে পুরনো কাসুন্দি যে তিনি ঘাঁটতে নারাজ তাও এদিন বুঝিয়ে দিয়েছেন মহারাজ। প্রসঙ্গে এড়িয়ে তিনি বলেন, “তামিলনাড়ুকে হারিয়ে বাংলা এখন গ্রুপে দু’নম্বর স্থানে। এখনও চারটে খেলা বাকি। সঙ্গে পরে আছে সারা সিজন।”

সিউড়ির খেলার মাঠ দেখে মুগ্ধ সৌরভ বলেন, “সিউড়ির এই মাঠে রঞ্জি ট্রফির ম্যাচ হওয়ার পরিকাঠামো আছে। কিন্তু রঞ্জি খেলতে গেলে বোর্ডের কিছু শর্ত থাকে। যার মধ্যে বিমান বন্দর থাকা একটা শর্ত।” সেই শর্ত পূরণ করতে পারবে কিনা সে প্রসঙ্গ তোলেন তিনি।

**রাজনৈতিক, ধর্মবিদ্বেষী ও খারাপ কমেন্ট করা থেকে বিরত থাকুন।**

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here