স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী আসাদুজ্জামান খান কামাল বলেছেন, তথ্য আমাদের অধিকার। সঠিক তথ্য সঠিকভাবে যাচাই না করে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে শেয়ার বা আপলোড করা যাবে না। ইতোমধ্যে র‌্যাব সাইবার ক্রাইম সেল গঠন করা হয়েছে। যার মাধ্যমে আমরা সাইবার অপরাধীদের নজর রাখছি। মিথ্যা তথ্য ও গুজব রটনাকারীকে ছাড় দেওয়া হবে না।

বৃহস্পতিবার দুপুরে রাজধানীর কারওয়ান বাজারে র‌্যাব মিডিয়া সেন্টারে ‘গুজব বিরোধী জনসচেতনতামূলক বিজ্ঞান (টিভিসি)’ -এর উদ্বোধন অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি এসব কথা বলেন।

তিনি বলেন, আমরা জানাতে চাই এটা (গুজব রটানো) দণ্ডনীয় অপরাধ। যারাই গুজব ছড়িয়ে দিচ্ছে ও চেষ্টা করছে তাদের আমরা চিহ্নিত করেছি ও চিহ্নিত করার চেষ্টা অব্যাহত রয়েছে।

জনগণকে গুজবে কান না দেওয়ার আহ্বান জানিয়ে তিনি বলেন, গুজব বা মিথ্যা তথ্য একটি দিয়াশলাইয়ের মতো। দিয়াশলাইয়ের কাঠি যেমন মুহূর্তের মতো বিশাল অগ্নিকাণ্ড ছড়াতে পারে, ভস্মীভূত করতে পারে -তেমনি একটা গুজব সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে ছড়িয়ে সামাজ ও রাষ্ট্রীয় স্থিতিশীলতা নষ্ট করতে পারে।

স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী বলেন, ছোট ছোট স্কুলের ছেলেমেয়েরা যে রাস্তায় নেমে এসেছিল। যদিও তারা একটা সঠিক কারণেই রাস্তায় নেমেছিল। কিন্তু সেটাকে গুজব রটিয়ে ভিন্নখাতে নেওয়ার অপচেষ্টা আমরা দেখেছি।

কয়েকটি অভিজ্ঞতা তুলে ধরে তিনি বলেন, বিগত সময়ে আমরা দেখেছি নিরাপদ সড়ক আন্দোলনে কোটা সংস্কার আন্দোলনে একটি চক্র সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে ছড়িয়ে কিভাবে অরাজকতা তৈরির অপচেষ্টা হয়েছিল। গুজব আইনের দৃষ্টিতে দণ্ডনীয় অপরাধ। র‌্যাব ও অন্যান্য আইন শৃঙ্খলা বাহিনী গুজব রটনাকারীদের দ্রুত আইনের আওতায় আনতে সক্ষম হয়েছে।

অনুষ্ঠানে পুলিশ মহাপরিদর্শক (আইজিপি) ড. মোহাম্মদ জাবেদ পাটোয়ারী, জননিরাপত্তা বিভাগের সচিব মোস্তফা কামলা উদ্দিন ও র‌্যাব মহাপরিচালক বেনজীর আহমেদবিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন।

**রাজনৈতিক, ধর্মবিদ্বেষী ও খারাপ কমেন্ট করা থেকে বিরত থাকুন।**

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here