জাতিসংঘে নিযুক্ত পদত্যাগকারী মার্কিন রাষ্ট্রদূত নিকি হ্যালি বলেছেন, তিনি ওই সংস্থায় আমেরিকার সিদ্ধান্ত চাপিয়ে দেয়ার ক্ষেত্রে প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্পকে ‘উন্মাদ ও বেপরোয়া’ হিসেবে তুলে ধরতেন। নিকি হ্যালির স্থলাভিষিক্ত হিসেবে হোয়াইট হাউজের মুখপাত্র হিদার নুয়ার্টকে মনোনয়ন দেয়ার পর একথা জানালেন হ্যালি।

মার্কিন সাময়িকী ‘আটলান্টিক’কে দেয়া এক সাক্ষাৎকারে নিকি হ্যালি বলেন, জাতিসংঘ নিরাপত্তা পরিষদে কোনো প্রস্তাব পাস করার ক্ষেত্রে বিশেষ করে উত্তর কোরিয়ার বিরুদ্ধে প্রস্তাব পাস করার সময় তিনি এই কৌশল বেশি অবলম্বন করতেন। মার্কিন রাষ্ট্রদূত বলেন, ট্রাম্পকে উন্মাদ হিসেবে তুলে ধরার মাধ্যমে নিরাপত্তা পরিষদের সদস্য দেশগুলোকে যেকোনো বিষয়ে রাজি করানো সহজ হয়ে যেত।

আটলান্টিকের পক্ষ থেকে প্রশ্ন করা হয়, নিরাপত্তা পরিষদে রাশিয়া ও চীনের উপস্থিতি সত্ত্বেও কীভাবে উত্তর কোরিয়ার বিরুদ্ধে একের পর এক প্রস্তাব পাস করা সম্ভব হলো? এর উত্তরে নিকি হ্যালি আরো বলেন, তিনি চীন ও রাশিয়ার প্রতিনিধিকে সব সময় বলতেন, উত্তর কোরিয়ার বিরুদ্ধে প্রস্তাব পাস না হলে উন্মাদ ট্রাম্প কি করে বসে তার কোনো গ্যারান্টি আমি দিতে পারব না।

২০১৭ সালের অক্টোবরে আমেরিকার কোনো কোনো সূত্র এ তথ্য ফাঁস করে দেয় যে, ডোনাল্ট ট্রাম্প তার উপদেষ্টা ও সহযোগীদের এই অনুমতি দিয়ে রেখেছেন যে, বিদেশিদের সঙ্গে আলোচনায় ছাড় আদায়ের ক্ষেত্রে তারা যেন ট্রাম্পকে ‘উন্মাদ’ হিসেবে উপস্থাপন করে

**রাজনৈতিক, ধর্মবিদ্বেষী ও খারাপ কমেন্ট করা থেকে বিরত থাকুন।**

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here