বাঁ পায়ের দুর্দান্ত দুই ফ্রি-কিকে জোড়া গোলের দেখা পেলেন আর্জেন্টাইন তারকা লিওনেল মেসি। গোল পেয়েছেন উসমান দেম্বেলে আর লুইস সুয়ারেস। আর তাতেই এস্পানিওলের মাঠে স্বাগতিকদের ৪-০ গোলের বড় ব্যবধানে হারিয়েছে কাতালানরা।

শুরু থেকেই প্রতিপক্ষকে চেপে ধরে বার্সেলোনা। ফলও দলটি পেয়ে যায় দ্রুত। ম্যাচের ১৭তম মিনিটে অতিথিদের এগিয়ে দেন মেসি। চমৎকার এক ফ্রি-কিকে কাছের পোস্ট ঘেঁষে জাল খুঁজে নেন আর্জেন্টিনার এ ফরোয়ার্ড। এর ৯ মিনিট পরই কাতালানদের ব্যাবধান দ্বিগুন করার গোলে কিং লিও রাখেন অবদান। কেননা তার রক্ষণচেরা পাস ডি-বক্সে বাঁ দিকে পেয়ে এক জনকে কাটিয়ে উঁচু শটে দূরের পোস্ট দিয়ে ঠিকানায় পাঠান ডেম্বেলে।

বিরতির আগে ৪৫তম মিনিটে ডেম্বেলের পাস ধরে এগিয়ে গিয়ে বাইলাইনের কাছ থেকে সুয়ারেজের শট গোলরক্ষকের পায়ে লেগে জালে জড়ায়। চলতি লিগে এটা তার দশম গোল। তাতে ব্যবধান ৩-০ করে বার্সেলোনা। জয়ও তখন দলটির জন্য হয়ে দাঁড়িয়েছিল সময়ের ব্যাপার।

এদিকে বিরতির পর আবারও বার্সেলোনাকে হতাশ করেন সুয়ারেজ। তবে ম্যাচের ৬৫তম মিনিটে

আরেকটি অসাধারণ ফ্রি-কিকে নিজের দ্বিতীয় গোলটি করে কাতালানদের ব্যবধান ৪-০ করেন মেসি। তাতে চলতি লা লিগায় ১১ গোল হয়ে গেল কিং লিওয়ের। এর ফলে সর্বোচ্চ গোলদাতার তালিকায় জিরোনার ক্রিস্থিয়ান স্তুয়ানির সঙ্গে যৌথভাবে শীর্ষে উঠে এলেন আর্জেন্টাইন ফরোয়ার্ড। এরপর ম্যাচের বাকি সময়ে আক্রমণ-পাল্টা আক্রমণে মধ্যে দিয়ে চললেও দুই দলের কোন খেলোয়াড়ই আর জালের দেখা পায়নি। যে কারণে ৪-০ গোলের জয় নিয়ে মাঠ ছাড়ে আরনাস্তে ভালভার্দের শিষ্যরা।

এ জয়ে ১৫ ম্যাচে ৩১ পয়েন্ট নিয়ে টেবিলের শীর্ষেই থাকল বার্সেলোনা। ২৮ পয়েন্ট নিয়ে টেবিলের দুইয়ে ভ্যালেন্সিয়া। সমানপয়েন্ট নিয়ে তৃতীয় স্থানে আছে অ্যাথলেতিকো মাদ্রিদ। চতুর্থ স্থানে থাকা আলাভেসের পয়েন্ট ২৪। রিয়াল মাদ্রিদ ২৩ পয়েন্ট নিয়ে রয়েছে রয়েছে পঞ্চম স্থানে।

**রাজনৈতিক, ধর্মবিদ্বেষী ও খারাপ কমেন্ট করা থেকে বিরত থাকুন।**

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here