ডায়মন্ড ব্যবসায়ী রাজেশ্বর কিশোরলালের খুনের ঘটনায় গ্রেফতার হলেন বাঙালি অভিনেত্রী দেবলীনা ভট্টাচার্য। জানা গেছে, ‘গোপী বহু’ খ্যাত দেবলীনাকে গুয়াহাটি থেকে গ্রেফতার করেছে আসাম পুলিশ। বর্তমানে দেবলীনাকে ঘাটকোপারের পেন্ড নগর থানায় রাখা হয়েছে, এই খুনের ঘটনায় তাকে জিজ্ঞাসাবাদ করছে পুলিশ।

ওই ব্যবসায়ীর সঙ্গে তার কী সম্পর্ক তা অভিনেত্রীর কাছে জানতে চাওয়া হয়েছে। ঘাটকোপার নিবাসী রাজেশ্বর উড়ানি ছিলেন হিরা ও সোনা ব্যবসায়ী৷ ৫৭ বছর বয়সী এই ব্যবসায়ী গত ২৮ নভেম্বর থেকে নিরুদ্দেশ ছিলেন ৷ তিনি বাড়িতে জানিয়েছিলেন,যে তারা আন্ধেরির বাড়িতে যাচ্ছেন ৷ কিন্তু তিনি আর ওই বাড়িতে ফিরেননি ৷

এমনি পরিস্থিতিতে উড়ানি পরিবার পুলিশের দ্বারস্থ হয়ে অভিযোগ দায়ের করে ৷ যার ফলে পনভেলের কাছে একটি জঙ্গল থেকে পুলিশ বিকৃত অবস্থায় রাজেশ্বর উড়ানির মৃতদেহ উদ্ধার করে। এরপর তদন্তের প্রেক্ষিতে একে একে মূল ঘটনা উদ্ঘাটনের চেষ্টা চালাচ্ছে পুলিশ। সেই প্রেক্ষিতেই গ্রেপ্তার হন দেবলীনা।

শুধু দেবালীনাই নন তার আগেই গ্রেপ্তার হয়েছেন নির্মাতা সচিন পাওয়ার। সেদিন শচিন পাওয়ার ১৩বার ফোন করেছিলেন রাজেশ্বর উড়ানিকে৷ এরপরই তাকে জিজ্ঞাসাবাদ শেষে গ্রেপ্তার করা হয়৷ তখন শচিনের গাড়িটির তল্লাশি চালানো হয় এবং পুলিশ বুঝতে পারেন এই খুনের পিছনে আর্থিক অসঙ্গতির কোনো কারণ জড়িয়ে আছে ৷

জানা গেছে, ব্যবসায়ী রাজেশ্বর উড়ানি যেদিন থেকে নিখোঁজ ছিলেন, সেদিনই ওই ব্যবসায়ীর ফোন ঘেঁটে দেখা যায়, তাকে অসংখ্যবার ফোন করেন সচিন পাওয়ার। সেদিনই সচিনকে গ্রেফতার করে জিজ্ঞাসাবাদ করা হয়। বর্তমানে সচিনের একটি টিভি সিরিজে কাজ করছেন দেবলীনা। আর সেকারণেই দেবলীনাকেও গ্রেফতার করে জিজ্ঞাসাবাদ করা হচ্ছে বলে খবর মিলেছে। পুলিশের অনুমান হিরা ব্যবসায়ীর খুনের পিছনে আর্থিক অসঙ্গতি রয়েছে।

এই বাঙালি অভিনেত্রী টেলিভিশন জগতের খুবই জনপ্রিয় মুখ ৷ ‘সাথ নিভানা সাথিয়া’ সিরিয়ালে সংস্কারী ঘরোয়া বধূর ভূমিকায় দেখা যায় দেবলীনাকে। কিন্তু, রিয়েল লাইফে বেশ বোল্ড এই অভিনেত্রী। প্রায় নিয়মিত নিজের ইনস্টাগ্রাম অ্যাকাউন্টে সুন্দর ও সাহসী ছবি পোস্ট করে থাকেন। জানা গিয়েছে, দেবলীনা চান ঘরোয়া বউয়ের এই ইমেজ ঝেড়ে ফেলতে। তাই তিনি সোশ্যাল মিডিয়ায় এধরনের বোল্ড ছবি পোস্ট করেন।

**রাজনৈতিক, ধর্মবিদ্বেষী ও খারাপ কমেন্ট করা থেকে বিরত থাকুন।**

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here