টি-২০ ক্যাপ্টেন হরমনপ্রীত কউর ও ভাইস ক্যাপ্টেন স্মৃতি মন্ধনা পুরনো কোচ রমেশ পাওয়ারের হয়ে তদ্বির করলেও ভারতের মহিলা ক্রিকেট দলের হেড কোচের লড়াইয়ে পালে হাওয়া পাওয়া মুশকিল টিম ইন্ডিয়ার প্রাক্তন স্পিনারের৷ একঝাঁক হাইপ্রোফাইল আন্তর্জাতিক ক্রিকেটার এবং অভিজ্ঞ কোচ রিংয়ে নিজেদের টুপি ছুঁড়ে দেওয়ায় নতুন করে আবেদন জানালেও পাওয়ারের পক্ষে প্রতিদ্বন্দ্বিতায় পেরে ওঠা সহজ হবে না৷

বিসিসিআই নিযুক্ত প্যানেলের পক্ষেও এমন তারকাদের ভিড় থেকে সঠিক লোককে খুঁজে নেওয়ার কাজ কঠিন হয়ে দাঁড়াবে নিশ্চিত৷ এখননও পর্যন্ত যে সব নামগুলি সামনে এসেছে, তাঁরা ছাড়াও ১৪ ডিসেম্বর পর্যন্ত নির্ধারিত সময়ে আরও কিছু নাম জমা পড়তে পারে বোর্ডের সদর দফতরে৷ তাতে আরও চমক অপেক্ষা করে আছে কি না, তা জানতে কয়েকটা দিন অপেক্ষা করতে হবে৷

মিতালি রাজের সঙ্গে সংঘাতে গিয়ে রমেশ পাওয়ারের পক্ষে নতুন করে ভারতের কোচের পদে বসা মুশকিল৷ তবে আবেদন করলে তিনি বিবেচনায় থাকবেন নিশ্চিত৷ ভারতীয়দের মধ্যে মহিলা দলের কোচ হওয়ার ইচ্ছা প্রকাশ করেছেন ভেঙ্কটেশ প্রসাদ, মনোজ প্রভাকরের মতো তারকারা৷ বিদেশী কোচেদের মধ্যে টম মুডি, ডেভ হোয়াটমোররা ইতিমধ্যেই আবেদন জানিয়েছেন৷ লড়াইয়ে অংশ নেওয়ার কথা ভাবছেন রে জেনিংস৷ তবে অত্যন্ত অপ্রত্যাশিতভাবে ভারতের কোচ হওয়ার ইচ্ছা প্রকাশ করে বিসিসিআইয়ে আবেদনপত্র পাঠিয়েছেন প্রাক্তন প্রোটিয়া তারকা হার্সেল গিবস৷

দক্ষিণ আফ্রিকার হয়ে ৯০টি টেস্ট, ২৪৮টি ওয়ান ডে ও ২৩টি আন্তর্জাতিক টি-২০ ম্যাচ খেলা গিবস সম্প্রতি কোচিং কেরিয়ার শুরু করেছেন৷ কুয়েতের জাতীয় দলকে কোচিং করানো ছাড়াও আফগানিস্তান প্রিমিয়র লিগে বাখ লেজেন্ডের হেড কোচ ছিলেন৷ এবার তাঁর নজর ভারতের মহিলা দলের কোচ হওয়ার দিকে৷ ক্রিকেটার হিসাবে টেস্টে ৬১৬৭, ওয়ান ডে’তে ৮০৯৪ ও অন্তর্জাতিক টি-২০ ক্রিকেটে ৪০০ রান করার অভিজ্ঞতা রয়েছে গিবসের৷

সোশ্যাল মিডিয়ায় গিবস নিজেই জানিয়েছেন তাঁর আবেদন করার কথা৷ টুইটারে এক অনুরাগীর প্রশ্নের উত্তরে গিবল স্বীকার করে নেন খবরের সত্যতা৷ প্রশান্ত ডি’সুজা নামক অনুরাগী গিবসের কাছে জানতে চান ভারতের মহিলা দলের কোচ হওয়ার জন্য তাঁর আবেদনের যে খবর শোনা যাচ্ছে, তা সত্যি কি না? উত্তরে হার্সেল লেখেন, ‘হ্যাঁ, আমি আমার নাম পাঠিয়েছি৷’

**রাজনৈতিক, ধর্মবিদ্বেষী ও খারাপ কমেন্ট করা থেকে বিরত থাকুন।**

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here