মুক্তিযুদ্ধ বিষয়ক মন্ত্রণালয়কে আগামী বছরের ৩০ জুনের মধ্যে মুন সিনেমা হল মালিককে শত কোটি টাকা পরিশোধের নির্দেশ দিয়েছে সুপ্রিম কোর্ট।

সোমবার প্রধান বিচারপতি সৈয়দ মাহমুদ হোসেনের নেতৃত্বাধীন আপিল বিভাগের সাত সদস্যের বেঞ্চ রাষ্ট্রের প্রধান আইন কর্মকর্তা মাহবুবে আলমের একটি আবেদনের শুনানি নিয়ে এই আদেশ দেন।

এর আগে গত ৮ অক্টোবর চলতি বছরের ৮ ডিসেম্বরের মধ্যে মুন সিনেমা হল মালিককে ওই টাকা পরিশোদের নির্দেশ দেন একই বেঞ্চ।

আপিল বিভাগের বেধে দেয়া ওই সময় ইতোমধ্যে শেষ গেছে। এরপর আরও চার মাস সময় চেয়ে রাষ্ট্রপক্ষ আবেদন করে।

আদালত আবেদিত সময়ের চেয়ে আরও দুই মাস অতিরিক্ত সময় দিয়ে এই সময়ের মধ্যে টাকা পরিশোধে ব্যর্থ হলে ৩০ জুন আদালতে অর্থ মন্ত্রণালয়ের সচিব ও মুক্তিযুদ্ধ বিষয়ক মন্ত্রণালয়ের সচিবকে স্বশরীরর হাজির হওয়ারও আদেশ দিয়েছেন।

এর আগে চলতি বছরের ১৮ জানুয়ারি মুন সিনেমা হল মালিককে ৯৯ কোটি টাকা দেয়ার জন্য বাংলাদেশ মুক্তিযোদ্ধা কল্যাণ ট্রাস্টকে নির্দেশ দিয়েছিল সুপ্রিম কোর্ট।

মুন সিনেমা হলের সম্পত্তির মালিকানা বিষয়ে এক মামলায় ২০১১ সালের মে মাসে সংবিধানের পঞ্চম সংশোধনীকে বেআইনি ঘোষণা করে মুক্তিযোদ্ধা কল্যাণ ট্রাস্টকে মুন সিনেমা হলের সম্পত্তি ফিরিয়ে দেয়ার আদেশ দেয়।

এর আগে ২০০০ সালে সংবিধানের পঞ্চম সংশোধনীকে চ্যালেঞ্জ করে ইটালিয়ান মার্বেল ওয়ার্কসের পক্ষে একটি রিট দায়ের করা হয়।

এরপর ২৯ আগস্ট ২০০৫ সালে হাইকোর্ট সংবিধানের পঞ্চম সংশোধনীকে অবৈধ ঘোষণা করে রায় দেয়। একই সঙ্গে রায়ে উল্লেখ করা হয় ১৫ আগস্ট ১৯৭৫ অভ্যুত্থানের পর থেকে ৯ এপ্রিল ১৯৭৯ পর্যন্ত ক্ষমতাসীনদের কার্যক্রমও অবৈধ।

এর ফলে ১৯৭৭ সালে সরকারের জমি সংক্রান্ত জারি করা একটি ডিক্রি চ্যালেঞ্জে পড়ে।

২০১২ সালের ১০ জানুয়ারি সরকার এবং মুক্তিযোদ্ধা কল্যাণ ট্রাস্ট কর্তৃপক্ষের বিরুদ্ধে মুন সিনেমা হলের সম্পত্তি ফিরিয়ে দেয়ার আদালতের নির্দেশ অবমাননার অভিযোগ এনে সুপ্রিম কোটে আবেদন করে ভূমি মালিক।

এরপর ২০১৭ সালের ১৫ জানুয়ারি সিনেমা হল মালিক ও সরকারের সংশ্লিষ্ট প্রকৌশল বিভাগ কর্তৃপক্ষকে মুন সিনেমা হলের বর্তমান সম্পত্তির মূল্য নির্ধারণে আদেশ দেয় সুপ্রিম কোর্ট।

**রাজনৈতিক, ধর্মবিদ্বেষী ও খারাপ কমেন্ট করা থেকে বিরত থাকুন।**

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here