ফ্রান্সের প্রেসিডেন্ট ইমানুয়েল ম্যাকরন শেষ পর্যন্ত আন্দোলনকারীদের দাবির কাছে নতি স্বীকার করেছেন। তিনি নিম্ন আয়ের মানুষদের বেতন বাড়ানোর পাশাপাশি করের বোঝা কমানোর প্রতিশ্রুতি দিয়েছেন। তিনি আরো বলেছেন, সামাজিক ও অর্থনৈতিক খাতে জরুরি সংস্কারগুলো আনার ব্যাপারে ‘কঠোর পদক্ষেপ’ নেবে তার সরকার।

ম্যাকরন সোমবার রাতে টেলিভিশনে জাতির উদ্দেশে দেয়া ভাষণে দেশে শান্তি ও শৃঙ্খলা ফিরিয়ে আনার জন্য ‘প্রয়োজনীয় সব ব্যবস্থা’ নেয়ারও প্রতিশ্রুতি দেন।  তিনি বলেন, যতশীঘ্র সম্ভব জনগণের ওপর করের বোঝা কমানো হবে এবং সরকারি ব্যয় কমিয়ে সামাজিক ও অর্থনৈতিক খাতের জরুরি সংস্কারগুলো সম্পন্ন করা হবে।

প্রেসিডেন্ট ম্যাকরন প্রতিশ্রুতি দেন, সীমিত আয়ের শ্রমিকদের ওপর থেকে করের বোঝা কমানো হবে এবং পেনশনভোগীদের ওপর আরোপিত কর বাড়ানোর পরিকল্পনা স্থগিত করা হবে।

ফরাসি প্রেসিডেন্ট বলেন, মাসিক বেতন কমপক্ষে ১০০ ইউরো বাড়ানো হবে এবং ওভারটাইমের ওপর কোনো কর বসানো হবে না।

ফ্রান্সের অর্থনৈতিক সংকট এবং জ্বালানীর ওপর কর বাড়ানোর প্রতিবাদে গত ১৭ নভেম্বর থেকে সরকার বিরোধী আন্দোলন শুরু হয়। ধীরে ধীরে সে আন্দোলন পুঁজিবাদ বিরোধী ‘হলুদ জ্যাকেট’ আন্দোলনে রূপ নেয়। গত কয়েকদিন ধরে আন্দোলনকারীদের সঙ্গে ফ্রান্সের নিরাপত্তা বাহিনীর নজিরবিহীন সংঘর্ষ হয় যার ফলে অন্তত চারজন নিহত ও শত শত লোক আহত হয়। পুলিশ হাজার হাজার বিক্ষোভকারীকে গ্রেফতার করে।

**রাজনৈতিক, ধর্মবিদ্বেষী ও খারাপ কমেন্ট করা থেকে বিরত থাকুন।**

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here